ভারতে করোনা চিকিৎসার বিল দেখে আত্মহত্যার চেষ্টা

বিজ্ঞাপন
default-image

ভারতে পশ্চিমবঙ্গের বেসরকারি করোনা হাসপাতালে করোনা চিকিৎসার বিল দেখে শনিবার কলকাতার মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এক রোগী আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। বিষয়টি দেখতে পেয়ে হাসপাতালের কর্মীরা তাঁকে উদ্ধার করেন।

দক্ষিণ কলকাতার আলিপুরের একটি বেসরকারি কোভিড হাসপাতালে গত বৃহস্পতিবার নিউমোনিয়া নিয়ে ভর্তি হয়েছিলেন ৫৬ বছর বয়সী এক রোগী। ওই রোগীর করোনা পরীক্ষা করে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানতে পারে তিনি করোনা পজিটিভ। শুরু হয় তাঁর করোনা চিকিৎসা। একপর্যায়ে তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় আইসিইউতে। চলে নানা পরীক্ষা। শুক্রবার হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ একদিনের চিকিৎসা বিল করে দেড় লাখ রুপি। এ কথা শুনতে পেরে রোগীর পরিজনদের মাথায় বাজ পড়ে। সামর্থ্য নেই হাসপাতালের ওই বিল পরিশোধের। এরপর ওই রোগীর আত্মীয়পরিজন শরণাপন্ন হন রাজ্যের মন্ত্রী, কলকাতা মেডিকেল কলেজের রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান চিকিৎসক নির্মল মাজির। তিনি বিষয়গুলি জানতে পেরে ওই রোগীকে শুক্রবারই নিয়ে আসেন কলকাতা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। রাখা হয় তাঁকে হাসপাতালের সুপার স্পেশালিটি ব্লকের চারতলার একটি বেডে।

এই বেলাগাম বিলের কথা জানতে পেরে ওই গরিব রোগী মানসিক যন্ত্রণায় বিধ্বস্ত হয়ে শনিবার সকালে চারতলার জানালার কাচ ভেঙে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করলে, এই দৃশ্য দেখতে পেয়ে হাসপাতালের কর্মীরা দ্রুত ছুটে গিয়ে তাঁকে উদ্ধার করে। এরপরে রোগীকে তাঁর বেডে এনে চিকিৎসকেরা কাউন্সেলিং করে।

এই ঘটনার পর চিকিৎসক-মন্ত্রী নির্মল মাজি বলেছেন, আলীপুর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ওই রোগী ভর্তির পর বৃহস্পতিবার সারা দিন চিকিৎসার নামে বিভ্রান্ত করেন। এরপরেই আমি শুক্রবার ওই রোগীকে কলকাতা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তির ব্যবস্থা করি। মেডিকেল কলেজের চিকিৎসকেরা ওই রোগী শুক্রবার দেখে বলেন, ওই রোগীর ভেন্টিলেশনের প্রয়োজন ছিল না। প্রয়োজন ছিল না আইসিইউর। রোগীর মাস্কের জন্য অক্সিজেন কম ছিল। যদিও ওই রোগীকে আলীপুর হাসপাতাল থেকে কলকাতা মেডিকেল কলেজ আনতে অ্যাম্বুলেন্স ১৩ হাজার রুপি নিয়েছিল।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন