default-image

ভারতের সশস্ত্র বাহিনী থেকে গত দুই বছরে অবসরে যাওয়া সব চিকিৎসক আবার কাজে যোগ দেবেন। তবে তাঁরা কাজ করবেন শুধু করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীদের জন্যই। নিজ নিজ বাড়ির কাছে কোভিড হাসপাতালে তাঁরা এ চিকিৎসা দেবেন বলে প্রতিরক্ষা বাহিনীর প্রধান বিপিন রাওয়াত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে জানান।

এনডিটিভির খবরে বলা হয়, আজ সোমবার বিপিন প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে এই মহামারির সময় দেশকে সহায়তায় নিজেদের প্রস্তুতির কথা জানান। তিনি বলেছেন, সামরিক বাহিনীতে অনেক অক্সিজেন সিলিন্ডার রয়েছে। দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত রোগীদের অনেকে এখন অক্সিজেনের অভাবে মারা যাচ্ছেন। তাই এসব সিলিন্ডার হাসপাতালগুলোতে দিয়ে দেওয়া হবে।

করোনা মহামারির দ্বিতীয় ঢেউয়ে ভারতের রাজধানী নয়াদিল্লিসহ দেশটির বিভিন্ন শহরের অধিকাংশ হাসপাতালে এখন আর শয্যা ফাঁকা নেই। এ কারণে ঘরে বসেই চিকিৎসা নিতে বাধ্য হচ্ছেন রোগীরা। কিন্তু ঘরে বসেও চিকিৎসা পেতে তাঁদের দারুণ বেগ পেতে হচ্ছে। অনেকটা মরিয়া হয়ে লড়াই করতে হচ্ছে। কারণ, অক্সিজেন সিলিন্ডার, জরুরি ওষুধসহ প্রয়োজনীয় সামগ্রী দোকানে পাওয়া যাচ্ছে না। এগুলো কালোবাজার থেকে চড়া দামে কিনতে হচ্ছে ভুক্তভোগীদের।

বিজ্ঞাপন

ভারতে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ও মৃত্যুতে প্রতিদিনই নতুন রেকর্ড হচ্ছে। গতকাল রোববারও দেশটিতে সংক্রমণ-মৃত্যুতে নতুন রেকর্ড হয়েছে।

ওয়ার্ল্ডোমিটার শুরু থেকেই বিশ্বের বিভিন্ন দেশের করোনাবিষয়ক হালনাগাদ তথ্য দিয়ে আসছে। ওয়ার্ল্ডোমিটারের সবশেষ তথ্য অনুযায়ী, গতকাল ভারতে ৩ লাখ ৫৪ হাজার ৫৩১ জন নতুন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। এদিন দেশটিতে করোনায় মারা গেছেন ২ হাজার ৮০৬ জন।

ভারতে পাঁচ দিন ধরে তিন লাখের বেশি করোনা রোগী শনাক্ত হচ্ছে। তার আগে ১৫ এপ্রিল থেকে দেশটিতে প্রতিদিন দুই লাখের বেশি করোনা রোগী শনাক্ত হচ্ছিল। আর ছয় দিন ধরে ভারতে দুই হাজারের বেশি মানুষ করোনায় মারা যাচ্ছেন।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন