বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, ভারতের উচ্চ আদালতের যে কমিটি বিচারপতি হিসেবে সৌরভ কিরপালের নাম প্রকাশ করেছে, তার নেতৃত্বে রয়েছেন প্রধান বিচারপতি এন ভি রামানা। তাঁর নেতৃত্বেই দিল্লি হাইকোর্টের বিচারপতি হিসেবে সৌরভ কিরপালের নাম প্রস্তাব করা হয়েছে। তিনি পেশায় আইনজীবী।

তবে এই নাম প্রস্তাব করলেই যে সৌরভ কিরপাল বিচারপতি হয়ে যাবেন, এমনটা নয়। নিয়ম অনুসারে, ভারতে বিচারপতি নিয়োগের ক্ষেত্রে প্রথমে সুপ্রিম কোর্টের প্যানেল নাম প্রস্তাব করবে। এরপর তা অনুমোদন দেবে কেন্দ্রীয় সরকার। ধারণা করা হচ্ছে, আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সরকার এই প্রস্তাবিত নাম অনুমোদন দেবে।

সৌরভ কিরপাল এবারও বিচারপতি হতে পারবেন কি না, তা নিয়ে এখনো খানিকটা সন্দেহ রয়ে গেছে। এর আগেও বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ দিতে চেয়েছিল সুপ্রিম কোর্টের ওই প্যানেল। কিন্তু তিনবার সেই সিদ্ধান্ত আটকে দেওয়া হয়েছে। সৌরভেরও ধারণা, তিনি সমকামী বলে তাঁকে বিচারক হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়নি।

সমকামীদের অধিকার প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট সবচেয়ে বড় পদক্ষেপ নিয়েছিলেন ২০১৮ সালে। ওই বছর আদালত এক আদেশে উল্লেখ করেছিলেন, সমকামিতা অপরাধ নয়। এ নিয়ে আদালতে আবেদন করা হয়েছিল। আর আবেদনকারীদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন সৌরভ কিরপাল।

ভারতে সমকামীদের সার্বিক পরিস্থিতি দিন দিন উন্নত হচ্ছে। তবে এই গতি বেশ মন্থর। কারণ, ভারতে বিভিন্ন অঞ্চলে সমকামীরা এখনো বৈষম্যের শিকার এবং কোথাও কোথাও হয়রানিরও শিকার হন তাঁরা। ফলে, সমকামী অধিকারকর্মীরা তাঁদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় সুনির্দিষ্ট আইন চাইছেন। কারণ, সমকামীরা বিভিন্ন স্থানে কাজ ও স্বাস্থ্যসেবা পেতে বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন