বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ভারতের সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বিশ্বাস সারাং বলেছেন, ‘হাসপাতালের বিশেষ কেয়ার ইউনিটে আগুন লাগে। এতে চার শিশুর মৃত্যু হয়। বিদ্যুতের লাইনে শর্টসার্কিট হওয়ার কারণে ওই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটতে পারে। ঘটনার তথ্য পেয়ে দ্রুতই আমরা ঘটনাস্থলে যাই। হাসপাতালের শিশুদের আমরা পাশের একটি ওয়ার্ড স্থানান্তর করেছি।’

default-image

একজন কর্মকর্তা বলেছেন, রাত নয়টার দিকে চারতলার ওই হাসপাতালের একটি ওয়ার্ড থেকে আগুনের সূত্রপাত। ওই ওয়ার্ডে আইসিইউ–সুবিধা ছিল। দ্রুত ঘটনাস্থলে আসে ফায়ার সার্ভিসের ৮ থেকে ১০টি ইউনিট।

অগ্নিকাণ্ডের সময় হাসপাতালটিতে কমপক্ষে ১৫০ শিশু ভর্তি ছিল বলে জানিয়েছে দেশটির একাধিক সংবাদমাধ্যম। অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে আতঙ্কিত হয়ে পড়েন শিশুদের স্বজনেরা। তাঁরা হাসপাতালে ঢোকার চেষ্টা করেন। তাঁদের নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

হাসপাতালে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাকে ‘খুবই দুঃখজনক’ উল্লেখ করে টুইট করেন শিবরাজ সিং চৌহান। তিনি বলেন, দ্রুত উদ্ধারকাজ শুরু করা হয়। ঘটনাটি উচ্চপর্যায়ের তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যত দ্রুত সম্ভব সবকিছু নিয়ন্ত্রণে আনতে প্রশাসন ও উদ্ধারকারী সদস্যদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন