বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মমতা বলেন, ‘একুশের রাজ্য বিধানসভা নির্বাচনে প্রথম খেলা হয়েছিল। সেই খেলায় আমরা জিতেছি। এই রাজ্যপাট থেকে বিজেপিকে হটিয়েছি। এবার ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচন ঘিরে দেশজুড়ে আবার খেলা হবে। সেই খেলা হবে দিল্লির শাসনক্ষমতা থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে হটানোর খেলা। দেশ থেকে বিজেপি হটানোর খেলা।’

মমতা বলেন, ‘যত দিন পর্যন্ত না মোদিকে দেশ থেকে হটানো যায়, তত দিন পর্যন্ত এই খেলা চলবে দেশজুড়ে। এবার আবার খেলা হবে। একুশের খেলায় আমরা এই রাজ্যে পরাজিত করেছি বিজেপিকে। আর চব্বিশের খেলায় এ দেশ থেকে হটিয়ে দেব আমরা মোদিকে। সেই খেলার জন্য প্রস্তুতি নিন। শুরু করুন খেলা। তাই ১৬ আগস্ট রাজ্যজুড়ে পালিত হবে খেলা দিবস।’

পশ্চিমবঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, আগামী ১৬ আগস্ট রাজ্যের বিভিন্ন ক্লাবকে ফুটবল দেওয়া হবে। বিজেপিকে ‘হাই ভোল্টেজ ভাইরাস পার্টি’ হিসেবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ওদের গুলি আর গালির রাজনীতির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার সময় এসেছে।

এদিকে বিজেপির পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যসভার সদস্য স্বপন দাশগুপ্ত বলেছেন, এই ১৬ আগস্ট ইতিহাসের এক ঐতিহাসিক দিন। ১৯৪৬ সালের এই ১৬ আগস্ট অবিভক্ত ভারতে শুরু হয়েছিল সাম্প্রদায়িক হত্যাযোগ্য। যাকে ইতিহাসের পাতায় লেখা হয়েছে ‘দ্য গ্রেট কলকাতা কিলিংস ডে’ হিসেবে। আবার ১৯৮০ সালের এই দিনেই কলকাতার ইডেনে মোহনবাগান-ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের ডার্বি ঘিরে উত্তেজনার বলি হয়েছিলেন ১৬ জন ফুটবলপ্রেমী। স্বপন প্রশ্ন তুলে বলেছেন, তাই কি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় খেলা দিবসের জন্য বেছে নিলেন এই দিনকে?

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন