বিজ্ঞাপন

গত শনিবার রাতে শুরু হওয়া বৃষ্টি রোববারও থামেনি। ভবনের ধ্বংসস্তূপের নিচে আটকে পড়া লোকজনকে উদ্ধারের কাজ চলছে। মুম্বাইয়ে সতর্কতা জারি করা হয়েছে। লোকজনকে বাইরে ঘোরাঘুরি করতে নিষেধ করা হয়েছে।

মুম্বাইয়ের পৌর কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি জানায়, রোববার সকালে শহরের বিক্রোলি এলাকায় একটি আবাসিক ভবন ভেঙে পড়ে। বিক্রোলির সূর্যনগর এলাকা থেকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে নয়জনকে।

ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে শহরের চিম্বুর এলাকাতেও। সেখানে ভরতনগর এলাকায় ভেঙে পড়া বাড়ির নিচে থেকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে ১৫ জনকে।

উদ্ধারকারী কর্মকর্তারা জানান, আহত ব্যক্তিদের স্থানীয় হাসপাতালগুলোতে পাঠানো হচ্ছে। এসব এলাকায় অনেকেই এখনো আটকে পড়ে আছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। তাদের উদ্ধারে চেষ্টা চলছে।

ভারতে জুন থেকে সেপ্টেম্বরে বর্ষা মৌসুমে ভবনধসের ঘটনা বেশি ঘটতে দেখা যায়। প্রায় ২ কোটি মানুষের শহর মুম্বাইয়ে শনিবার শুরু হওয়া বৃষ্টিতে যান চলাচল ব্যাহত হচ্ছে।

ভারতের আবহাওয়া দপ্তরের পূর্বাভাস অনুযায়ী, আগামী দুই দিন ধরে ভারী বর্ষণের ঘটনা ঘটতে পারে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি টুইট করে নিহত ব্যক্তিদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন। তিনি ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে আর্থিক সাহায্যের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।
গত মাসে মুম্বাইয়ের একটি বস্তিতে ভবন ধসে ১২ জন নিহত হয়েছিলেন। গত সেপ্টেম্বরে মুম্বাইয়ের কাছে একটি তিনতলা ভবন ধসে ৩৯ জন নিহত হন।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন