default-image

ভারতের মুম্বাইতে জনসমাগমস্থলে করোনাভাইরাসের পরীক্ষা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। কেউ পরীক্ষা করাতে না চাইলে সেটি অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে। সংক্রমণ ঠেকাতে এমন পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার। দেশটিতে স্থানীয় সময় গতকাল শনিবার চার মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে।

বিবিসির আজ রোববারের খবরে জানা যায়, স্থানীয় সরকার বলছে, শপিং মল ও রেলস্টেশনের মতো জনসমাগমস্থলে করোনাভাইরাসের র‍্যাপিড পরীক্ষা চালাতে হবে। কেউ করোনা পরীক্ষা করাতে না চাইলে সেটি অপরাধ হিসেবে গণ্য করা হবে।

শপিং সেন্টার ছাড়া অন্য সব জায়গায় বিনা মূল্যে করোনা পরীক্ষা করা হবে। তবে যারা করোনা পরীক্ষা করতে রাজি হবে না, তাদের বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেওয়া হবে, তা মুম্বাইয়ের কর্মকর্তারা সুনির্দিষ্ট করে জানাননি।

গতকাল ভারতে এক দিনে ৪০ হাজার ৯৫৩ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। চার মাসের মধ্যে এই সংক্রমণ সবচেয়ে বেশি। করোনায় সংক্রমিত হয়ে ভারতে ১ লাখ ৫৯ হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

মহারাষ্ট্র রাজ্যের মুম্বাই ভারতে করোনা সংক্রমণের হটস্পট। সেখানে গত ২৪ ঘণ্টায় ২ হাজার ৯৮২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

মুম্বাইয়ের স্থানীয় কর্মকর্তারা বলছেন, শপিং সেন্টার ও রেলস্টেশনের মতো জনসমাগমস্থলে আগামীকাল সোমবার থেকে র‍্যাপিড করোনা পরীক্ষা বাধ্যতামূলক করা হবে।

স্থানীয় সরকারের কমিশনার ইন্ডিয়া টুডেকে জানান, মুম্বাইয়ের ব্যস্ত কোনো এলাকায় ঢুকতে গেলেই মানুষকে করোনা পরীক্ষার নমুনা দেওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে। শপিং সেন্টার ছাড়া অন্য সব জায়গায় বিনা মূল্যে করোনা পরীক্ষা করা হবে। তবে যারা করোনা পরীক্ষা করতে রাজি হবে না, তাদের বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেওয়া হবে, তা মুম্বাইয়ের কর্মকর্তারা সুনির্দিষ্ট করে জানাননি।

স্থানীয় কর্তৃপক্ষ বলছে, তারা করোনা শনাক্তে র‍্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট করবে। তবে বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, এ ধরনের পরীক্ষা কম নির্ভরযোগ্য। এতে অনেক সময় সঠিক ফল আসে না।

কেরালা, পাঞ্জাব, কর্ণাটক, গুজরাট, তামিলনাড়ু, হরিয়ানা ও মধ্যপ্রদেশেও করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়েছে। ভারতের বেশ কিছু এলাকায় করোনা ঠেকাতে লকডাউন ও রেস্তোরাঁ বন্ধের মতো বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছে।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন