default-image

প্রধানমন্ত্রী ও বিজেপির নেতা নরেন্দ্র মোদির কড়া সমালোচক অমর্ত্য সেন বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালনা বোর্ডকে সম্প্রতি লেখা এক চিঠিতে নিজের সিদ্ধান্তের জন্য সরকারকে দায়ী করেন
দ্বিতীয় মেয়াদে থেকে যাওয়ার ব্যাপারে পরিচালনা বোর্ডের সর্বসম্মত সুপারিশ ছিল। তার পরও বৃহস্পতিবার নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয়কে ‘না’ বলে দিলেন এর আচার্য নোবেলজয়ী ভারতীয় অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন। নরেন্দ্র মোদির সরকার তাঁকে চাইছেন না বলেই এ সিদ্ধান্ত—জানিয়েছেন অমর্ত্য সেন। খবর পিটিআই ও এনডিটিভির।
আচার্য পদে নতুন মেয়াদে না থাকার সিদ্ধান্ত জানানোর পরের দিন গতকাল এনডিটিভিকে অমর্ত্য সেন বলেন, নাগরিক হিসেবে মোদির সমালোচনা করার অধিকার তাঁর আছে। এ বিষয়টি সরকারকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিষয়ে হস্তক্ষেপের অধিকার দেয় না।
২০১২ সালের জুলাই মাসে নালন্দা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম আচার্য হিসেবে অমর্ত্য সেনের নাম ঘোষণা করা হয়। আগামী জুলাই মাসে সেই মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা ছিল।
প্রধানমন্ত্রী ও বিজেপির নেতা নরেন্দ্র মোদির কড়া সমালোচক অমর্ত্য সেন বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালনা বোর্ডকে সম্প্রতি লেখা এক চিঠিতে নিজের সিদ্ধান্তের জন্য সরকারকে দায়ী করেন। এতে তিনি বলেছেন, দ্বিতীয় মেয়াদের ব্যাপারে বোর্ডের সুপারিশটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ভিজিটর’ রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জির কাছে পাঠানো হয়েছে এক মাসের বেশি সময় আগে। তবে সরকার সেটির ব্যাপারে আজ পর্যন্ত ‘হ্যাঁ’ বা ‘না’ কিছু না বলায় রাষ্ট্রপতি অনুমোদন দিতে পারছেন না। অমর্ত্য সেন লিখেছেন, ‘(সরকারের) নিষ্ক্রিয়তার বিষয়টি বোর্ডের সিদ্ধান্তকে বদলে দেওয়ার জন্য একটা কালক্ষেপণের কৌশলমাত্র। যেখানে সরকারের পদক্ষেপ নেওয়া বা না নেওয়ার ক্ষমতা রয়েছে, সেখানে...এ সিদ্ধান্তে না পৌঁছানো কঠিন যে সরকার আগামী জুলাইয়ের পর আচার্য পদ থেকে আমার চলে যাওয়া দেখতে চায়। নিয়ম অনুযায়ী, সরকারের সেটা করার ক্ষমতা আছে।’

চিঠিতে অমর্ত্য সেন আরও লিখেছেন, সরকারের এই দীর্ঘসূত্রতার কারণে অনিশ্চয়তা বাড়ছে। এ কারণে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণে সমস্যা হচ্ছে।

বিজ্ঞাপন
ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন