default-image

করোনা সংক্রমণ রেকর্ড পরিমাণে বেড়ে যাওয়ায় অ্যান্টিভাইরাল ওষুধ রেমডেসিভির রপ্তানি নিষিদ্ধ করেছে ভারত। আজ রোববার ভারত সরকারের পক্ষ থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ভারতে করোনা পরিস্থিতি স্থিতিশীল হওয়ার আগপর্যন্ত রেমডেসিভির ইনজেকশন ও এটি তৈরির উপাদান রপ্তানি করা যাবে না।

ভারতের সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারতে করোনা সংক্রমণ লাফিয়ে বাড়ছে। আজ দেশটিতে ১১ লাখের বেশি করোনা রোগী ছিলেন। ১ দিনে নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন ১ লাখ ৫২ হাজারের বেশি। প্রতিদিনই নতুন শনাক্ত আগের রেকর্ড ছাড়িয়ে যাচ্ছে। এমন সংকটময় পরিস্থিতিতে কোভিড–১৯ রোগীদের চিকিৎসার জন্য আগামী দিনগুলোয় ভারতে অ্যান্টিভাইরাল ওষুধ রেমডেসিভিরের চাহিদা বাড়বে বলে ধারণা বিশ্লেষকদের। বাড়তি চাহিদার চাপ সামলাতে আপাতত ওষুধটির রপ্তানি বন্ধের পথ বেছে নিল দেশটি।

বিজ্ঞাপন

মার্কিন প্রতিষ্ঠান গিলিয়েডের সঙ্গে চুক্তির আওতায় ভারতের সাতটি কোম্পানি রেমডেসিভির উৎপাদন করে। প্রতি মাসে প্রায় ৩৮ লাখ ৮০ হাজার ইউনিট রেমডেসিভির উৎপাদন করা হয় ভারতে। ন্যাশনাল ক্লিনিক্যাল ম্যানেজমেন্ট প্রটোকল ফর কোভিড–১৯–এর আওতায় দেশটিতে করোনা রোগীদের চিকিৎসায় রেমডেসিভির ব্যবহৃত হয়। মানুষের শিরায় ইনজেকশন হিসেবে এ ওষুধ প্রয়োগ করতে হয়। রোগের তীব্রতার ওপর এর ডোজ নির্ভর করে।

সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে নিজেদের উৎপাদনকারী কোম্পানিগুলোকে ভারত সরকার ওষুধটির উৎপাদন, মজুত ও সরবরাহ নিয়ে হালনাগাদ তথ্য নিজ নিজ ওয়েবসাইটে প্রকাশের নির্দেশনা দিয়েছে। একই সঙ্গে রেমডেসিভিরের বেআইনি মজুত নিয়ন্ত্রণ ও কালোবাজারি রুখতে নজরদারি জোরদার করার কথা বলা হয়েছে। সম্ভাব্য সংকট এড়াতে রেমডেসিভিরের উৎপাদন বাড়ানোতেও জোর দিতে বলা হয়েছে।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন