default-image

ভারতের অন্ধ্র প্রদেশে ঘরহীন, অচেনা এক ব্যক্তি মরে পড়ে ছিলেন। লাশের সৎকার করতে প্রয়োজন কিছু লোকজন; কিন্তু কেউই এগিয়ে এল না। শেষে এক নারী পুলিশ কর্মকর্তা লাশের খাটিয়ার এক পাশ ধরলেন, তাঁকে দেখে এক ব্যক্তি এগিয়ে এসে আরেক পাশ কাঁধে তুলে নিলেন। লাশ কাঁধে নিয়ে দুই কিলোমিটার হেঁটে গেলেন ওই নারী কর্মকর্তা।

ভারতের সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির খবরে বলা হয়েছে, অন্ধ্র প্রদেশের শ্রীকাকুলাম জেলার পালাসা শহরে এ ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনার ছবি ও ভিডিও চিত্র সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়েছে। নেটিজেনরা প্রশংসাও করছেন ওই নারী কর্মকর্তার। তাঁর নাম কে সিরিশা। পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) পদে কর্মরত তিনি।

বিজ্ঞাপন

ভিডিওতে দেখা গেছে, কে সিরিশা খাটিয়ায় লাশ কাঁধে নিয়ে খেতের মধ্য দিয়ে হেঁটে চলেছেন। তাঁকে সাহায্য করছিলেন আরেক ব্যক্তি। এই দুজনে মিলেই চলছিলেন সৎকারের স্থানে। সিরিশার এমন কাজের ভূয়সী প্রশংসা করেছে অন্ধ্র প্রদেশের পুলিশ বিভাগ। এক টুইট বার্তায় ওই ঘটনার একটি ভিডিও চিত্র শেয়ার করা হয়েছে পুলিশের পক্ষ থেকে। ভিডিওতে দেখা যায়, আশপাশের মানুষ বলছিল যে ‘ম্যাডাম চলে যান’।

জবাবে কে সিরিশা বলছিলেন, ‘সমস্যা নেই। ঠিক আছে সব।’ সৎকারের মূল অনুষ্ঠানেও অংশ নিয়েছিলেন এই নারী পুলিশ কর্মকর্তা।

জানা গেছে, মৃত ব্যক্তিটির নাম-পরিচয় অজানা ছিল। তাই স্থানীয় গ্রামবাসী ওই লাশের সৎকারে অংশ নিতে চায়নি।

এই ঘটনার ছবি ও ভিডিও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে শেয়ার করেছেন পুলিশের অনেক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও রাজনীতিবিদ। ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) পক্ষে অন্ধ্র প্রদেশের দায়িত্বপ্রাপ্ত সুনীল দেওধর লিখেছেন, ‘কে সিরিশাকে স্যালুট। তিনি জনগণের প্রতি দায়িত্ববোধ দেখিয়েছেন।’

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন