default-image

ভারতে করোনার টিকা কর্মসূচি শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন বা সিএএ বলে মতুয়াদের নাগরিকত্ব দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হবে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। এই প্রক্রিয়ায় কোনো সংখ্যালঘু মানুষ বাদ যাবে না বলে আশ্বাস দেন তিনি।

আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে পশ্চিমবঙ্গে মতুয়াদের তীর্থভূমি উত্তর চব্বিশ পরগনার ঠাকুর নগরে আয়োজিত এক বিশাল মতুয়া সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।
নাগরিকত্ব আইন কার্যকর হলে বাদ যাবে সংখ্যালঘু মুসলিমদের নাম—এমন প্রসঙ্গ টেনে অমিত শাহ বলেন, কখনো এই সিএএ আইনবলে সংখ্যালঘু মুসলিমদের নাম বাদ যাবে না। ওরা (তৃণমূল, বামদল এবং কংগ্রেস) মিথ্যা প্রচার করছে।

করোনার কারণে এই আইন বলবৎ করত দেরি হচ্ছে উল্লেখ করে  কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বিজেপি সরকার ২০১৮ সালেই বলেছিল, তারাই মতুয়াদের নাগরিকত্ব দেবে। এ লক্ষ্যে ২০২০ সালে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন পাস হয়। কিন্তু করোনার কারণে সেই আইন বলবৎ হতে বিলম্ব ঘটে। বিজেপি জোরের সঙ্গে জানাচ্ছে, তাদের ঘোষণা মতে বিজেপিই নাগরিকত্ব দেবে মতুয়াদের। বলেন, মতুয়ারা ৭০ বছর ধরে নাগরিত্ব পাননি।

উপেক্ষিত হয়েছে। এবার বিজেপি সরকার মতুয়াদের সম্মান জানাবে। নাগরিকত্ব দেবে। তাই বিরোধীদের মিথ্যা প্রচারে কান না দিতে আহ্বান জানান তিনি।

বিজ্ঞাপন

পশ্চিমবঙ্গের আসন্ন রাজ্য বিধানসভার নির্বাচন সামনে রেখে প্রচারের লক্ষ্যে ৬ ফেব্রুয়ারি বিজেপি শুরু করেছে এই রাজ্যে পরিবর্তনযাত্রা। রাজ্যের পাঁচ প্রান্ত থেকে চলবে এই পরিবর্তনযাত্রা। ইতিমধ্যে তিনটি পরিবর্তনযাত্রা শুরুও হয়েছে। ৬ ফেব্রুয়ারি প্রথম পরিবর্তনযাত্রা শুরু হয় নদীয়ার নবদ্বীপ থেকে। ৯ ফেব্রুয়ারি দ্বিতীয় ও তৃতীয় পরিবর্তনযাত্রা শুরু হয় বীরভূমের তারাপীঠ এবং ঝাড়গ্রামের লালগড় থেকে। এ তিন পরিবর্তনযাত্রার সূচনা করেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নাড্ডা। আজ দুপুরে চতুর্থ যাত্রার সূচনা করতে কোচবিহারে আসেন অমিত শাহ। এসেই তিনি ঐতিহাসিক মদনমোহন মন্দিরে যান। সেখানে পূজা দিয়ে চলে আসেন রাসলীলা ময়দানে। সেখানে জনসভা সেরে তিনি উদ্বোধন করেন চতুর্থ পরিবর্তনযাত্রার।

রাসলীলা ময়দানে আয়োজিত জনসভায় অমিত শাহ বলেছেন, এবার আর এই বাংলায় গুন্ডা দিয়ে ভোট করা যাবে না। মানুষ প্রস্তুত এই বাংলা থেকে মমতা দিদিকে হটানোর। এবার দুই শতাধিক আসন পেয়ে এই বাংলায় ক্ষমতায় আসবে বিজেপি। তারপর এই বাংলাকে সোনার বাংলায় রূপ দেবে বিজেপি। একদিকে কেন্দ্রে মোদি, অন্যদিকে এই রাজ্যে বিজেপি সরকার। এই ডাবল ইঞ্জিন সরকারই এবার একযোগে বাংলাকে সোনার বাংলায় রূপ দেবে।

বিজ্ঞাপন
ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন