default-image

রাজ্যসভায় সাংসদ (এমপি) পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন দীনেশ ত্রিবেদী। তিনি তৃণমূল কংগ্রেসের হয়ে রাজ্যসভার সাংসদ পদে দায়িত্বপালন করছিলেন। তৃণমূল কংগ্রেস ছাড়ার কথাও বলেন তিনি।

আজ শুক্রবার রাজ্যসভায় দীনেশ ত্রিবেদী বলেন, তিনি তৃণমূল থেকে পদত্যাগ করছেন। সেই সঙ্গে রাজ্যসভার সাংসদ পদ থেকেও পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন।
দীনেশ ত্রিবেদী জানান, তৃণমূলে তিনি স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারছেন না। এবার তিনি দেশের জন্য কাজ করতে পারবেন। তিনি বলেন, যেভাবে পশ্চিমবঙ্গে সহিংস ঘটনা ছড়িয়ে পড়ছে, তা তিনি মেনে নিতে পারছেন না।

দীনেশ ত্রিবেদীর জন্ম দিল্লিতে। বয়স ৭০ বছর। তিনি ২০০৯ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গের ব্যারাকপুর লোকসভা আসনের সাংসদ ছিলেন। ২০১১ সালের ১৩ জুলাই ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের রেলমন্ত্রী হন। ওই পদে ২০১২ সালের ১৮ মার্চ পর্যন্ত দায়িত্বপালন করেন। এর আগে তিনি ভারতের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ প্রতিমন্ত্রীও ছিলেন।

বিজ্ঞাপন

২০১৯ সালে লোকসভা নির্বাচনে ব্যারাকপুর আসনে বিজেপি প্রার্থী অর্জুন সিংয়ের সঙ্গে লড়ে হেরে যান দীনেশ ত্রিবেদী। অর্জুন সিং ভারতীয় জনতা পার্টির হয়ে লড়েন। এরপর মমতা দীনেশ ত্রিবেদীকে ২০০০ সালে রাজ্যসভার সাংসদ পদে পাঠান। সেই পদে থেকেই আজ তিনি পদত্যাগ করলেন।

দীনেশ ত্রিবেদীর পদত্যাগে খুশি হয়ে অর্জুন সিং বলেছেন, তৃণমূলে কেউ কাজের সম্মান পায় না। দীনেশ ত্রিবেদী বিজেপিতে যোগ দিলে তিনি খুশি হবেন। বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষও বলেছেন, দীনেশ ত্রিবেদীকে বিজেপিতে স্বাগত।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন