default-image

আমদানি কমিয়ে দেশকে আত্মনির্ভর করে তুলতে আরও এক কদম পা বাড়াল ভারত। প্রতিরক্ষা–সংক্রান্ত যেসব অস্ত্র ও সামরিক সম্ভার এখন পর্যন্ত ভারত আমদানি করে আসছে, এবার তা কমিয়ে দেশেই তৈরির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং রোববার একাধিক টুইট মারফত এই খবর জানান।

রাজনাথ সিংয়ের টুইট অনুযায়ী, ভারত ১০১ ধরনের অস্ত্র ও সামরিক সরঞ্জাম আমদানি বন্ধ করে দেবে। এর ফলে দেশীয় সংস্থাগুলো আগামী কয়েক বছরে প্রায় চার লাখ কোটি রুপির বরাত পাবে। চলতি বছর থেকেই এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে। পাঁচ বছরের মধ্যে এই ১০১ ধরনের অস্ত্র ও সামরিক সম্ভার পুরোপুরি ভারতেই তৈরি হবে।

ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেন, দেশি প্রতিরক্ষা শিল্পগুলো নিজেরাই এই অত্যাবশ্যক পণ্যগুলো তাদের নকশা অনুযায়ী তৈরি করতে সক্ষম। এই কাজে তাদের সাহায্যের হাত বাড়াবে সরকারের ‘ডিফেন্স রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশনও’ বা ডিআরডিও। সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রয়াত এ পি জে আবদুল কালামের স্বপ্ন ছিল প্রতিরক্ষার ক্ষেত্রে দেশকে স্বনির্ভর করে তুলতে ‘ডিআরডিও’কে উপযুক্ত করে গড়ে তোলা। রাষ্ট্রপতি হওয়ার আগে পর্যন্ত বিজ্ঞানী হিসেবে তিনি এই কাজেই ব্রতী ছিলেন।

দেশের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় যে তালিকা তৈরি করেছে, তাতে অন্য অনেক কিছুর মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন ধরনের কামান, অ্যাসল্ট রাইফেল, রণতরি, মাল পরিবহন বিমান, হালকা যুদ্ধ হেলিকপ্টার, রেডার। রাজনাথ জানিয়েছেন, আগামী ছয়-সাত বছরের মধ্যে সেনা ও বিমানবাহিনী ২ লাখ ৬০ হাজার কোটি রুপির অস্ত্র ও সম্ভার দেশি সংস্থার কাছ থেকে কিনবে। নৌবাহিনী ওই সময়ের মধ্যে কিনবে ১ লাখ ৪০ হাজার কোটি রুপির সামরিক পণ্য। মন্ত্রী জানান, তিন বাহিনীর সঙ্গে আলোচনার মধ্য দিয়েই ওই তালিকা প্রস্তুত হয়েছে। আগামী দিনে আরও অনেক পণ্য চিহ্নিত হবে, যাতে সরবরাহের জন্য বিদেশের ওপর নির্ভরশীল হতে না হয়।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0