বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বৈঠকে ইরানের সর্বোচ্চ নেতা খামেনি আসাদকে বলেছেন, ‘যুদ্ধের আগে সিরিয়ার যে অবস্থা ছিল, তা এখন আর নেই। তবে সিরিয়ার সম্মান ও মর্যাদা আগের চেয়ে বেড়েছে। সবাই এ দেশটিকে ক্ষমতাবান হিসেবে বিবেচনা করে।’

রোববার খামেনি ছাড়াও ইরানি প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসির সঙ্গে বৈঠক করেছেন আসাদ। বৈঠকে রাইসি বলেছেন, সিরিয়ার সঙ্গে কৌশলগত সম্পর্ক দৃঢ় করাকে অগ্রাধিকার দেয় তাঁর সরকার।

আসাদকে উদ্ধৃত করে ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের খবরে বলা হয়, ইরান ও সিরিয়ার মধ্যকার কৌশলগত বন্ধনের মধ্য দিয়ে আঞ্চলিকভাবে জায়নবাদী সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলা সম্ভব হয়েছে।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে সিরিয়ায় ইরানের অর্থনৈতিক প্রভাব বাড়তে দেখা গেছে। আসাদ সরকারকে ঋণ দেওয়ার পাশাপাশি বিভিন্ন আকর্ষণীয় ব্যবসায়িক চুক্তি করেছে দেশটি।

নুর নিউজের প্রতিবেদন অনুযায়ী, এরই মধ্যে তেহরান ছেড়ে সিরিয়ার উদ্দেশে রওনা করেছেন আসাদ।

মধ্যপ্রাচ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন