তালেবান সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আমির খান মুত্তাকি ও আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষ দূত টম ওয়েস্ট ওই বৈঠকে অংশ নেন। আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের পর কাতারে দুই পক্ষের মধ্যে অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় বৈঠক এটি।

আফগান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আবদুল কাহার বালখি টুইট করেছেন, দুই দেশের প্রতিনিধিদল রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক, মানবিক, স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও নিরাপত্তাবিষয়ক আলোচনার পাশাপাশি প্রয়োজনীয় ব্যাংকিং ও নগদ সুবিধা প্রদান নিয়ে আলোচনা করেছে। আফগান প্রতিনিধিদল মার্কিন পক্ষকে নিরাপত্তার আশ্বাস দিয়েছে ও আফগানিস্তানের জমাকৃত অর্থ নিঃশর্তভাবে ছেড়ে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে।

ওয়াশিংটন আফগান কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রায় ৯৫০ কোটি মার্কিন ডলার মূল্যের সম্পদ জব্দ করেছে। এ ছাড়া আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) ও বিশ্বব্যাংক আফগানিস্তানে কার্যক্রম বন্ধ রেখেছে। এমন পরিস্থিতিতে ও নানা সংকটে পড়ে যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানের অর্থনীতি ভেঙে পড়ার উপক্রম হয়েছে। অনেক সরকারি কর্মী বেতন পাচ্ছেন না। জাতিসংঘ সতর্ক করে বলেছে, দেশটির জনসংখ্যার প্রায় অর্ধেক বা ২ কোটি ২০ লাখ মানুষ শীতের সময় চরম খাদ্যসংকটের মুখোমুখি হবে।
যুক্তরাষ্ট্র যেসব তালেবান নেতার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে, তার মধ্যে তালেবান সরকারের প্রধান মোল্লা হাসান আখুন্দও রয়েছেন।

তালেবানের পক্ষ থেকে দোহার আলোচনাকে ইতিবাচক বলে মন্তব্য করা হয়েছে। দোহায় মুত্তাকি জাপান ও জার্মান রাষ্ট্রদূতদের সঙ্গেও আলোচনা করেছেন।

মধ্যপ্রাচ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন