বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

শনিবার এক টুইটার পোস্টে ইমরান লিখেছেন, ‘ওআইসির সদস্য দেশের প্রতিনিধি, পর্যবেক্ষক, বন্ধু, সহযোগী ও আন্তর্জাতিক সংগঠনগুলোকে পাকিস্তানে স্বাগত জানাচ্ছি। ওআইসির পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের বিশেষ এ অধিবেশনের মধ্য দিয়ে আফগান জনগণের প্রতি সংহতি প্রকাশ করা হবে। এর মধ্য দিয়ে আফগানিস্তানে শোচনীয় মানবিক পরিস্থিতি মোকাবিলায় আমাদের করণীয় নির্ধারণ করা হবে।’

পাকিস্তানের পার্লামেন্ট ভবনে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হচ্ছে। শনিবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি অধিবেশনস্থল পরিদর্শনে গিয়ে তিনি বলেন, ‘আশা করা হচ্ছে, আফগানিস্তানে মানবেতর পরিস্থিতির প্রেক্ষাপটে আয়োজিত এ বিশেষ বৈঠক ইতিবাচক ফল বয়ে আনবে।’

৫৭ দেশের মধ্যে প্রায় ২০টি দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা সরাসরি এ বৈঠকে যোগ দেবেন। অপর ১০টি দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করবেন তাদের উপমন্ত্রীরা। বাকি দেশগুলো তাদের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের অধিবেশনে যোগ দেওয়ার জন্য পাঠিয়েছে।

জাতিসংঘ, বিভিন্ন আন্তর্জাতিক আর্থিক প্রতিষ্ঠান, আন্তর্জাতিক ও আঞ্চলিক সংস্থার কর্মকর্তাদের অধিবেশনে অংশ নেওয়ার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। ওআইসিভুক্ত না হলেও জাপান ও জার্মানির মতো কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ দেশের প্রতিনিধিদেরও আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।

পাকিস্তান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন