তালিকায় ইমরানের যে ছয় ঘনিষ্ঠ সহযোগীর নাম অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে, তাঁরা হলেন প্রধানমন্ত্রীর সাবেক মুখ্যসচিব আজম খান, রাজনৈতিক যোগাযোগ-বিষয়ক বিশেষ সহকারী শাহবাজ গিল, স্বরাষ্ট্র ও জবাবদিহি-বিষয়ক উপদেষ্টা শাহজাদ আকবর, পাঞ্জাবের দুর্নীতি দমন সংস্থার মহাপরিচালক গহর নাফিস ও কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা পাঞ্জাবের (অঞ্চল-২) মহাপরিচালক মোহাম্মদ রিজওয়ান।

তালিকায় ইমরানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) সোশ্যাল মিডিয়ার প্রধান আরসালান খালিদের নামও আছে।

পার্লামেন্টে অনাস্থা ভোটে হেরে ইমরান সরকারের পতনের পর গত শনিবার গভীর রাতে লাহোরে আরসালান খালিদের বাসায় অজ্ঞাতপরিচয়ের ১১ ব্যক্তি অভিযান চালান।

এফআইএ আগে অনাপত্তিপত্র (এনওসি) ছাড়া পাকিস্তানের সরকারি কর্মকর্তাদের দেশত্যাগে বিধিনিষেধ দেয়। অনাস্থা ভোটে ইমরান ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার প্রেক্ষাপটে উদ্ভূত পরিস্থিতি বিবেচনায় এ পদক্ষেপ নেয় এফআইএ।

দেশ ছাড়ার চেষ্টা করা ‘ওয়ান্টেড’ ব্যক্তিদের আটকাতে ২০১৫ সালে পাকিস্তানের সব বিমানবন্দরে ‘স্টপ-লিস্ট’ পুনরায় চালু করে এফআইএ। এ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ‘অপরাধী’ যেকোনো ব্যক্তির দেশত্যাগ ঠেকাতে পারে এফআইএ।