বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গতকাল বুধবার পিটিআই নেতা ফয়সাল দাবি করেন, প্রধানমন্ত্রী ইমরানকে হত্যার পরিকল্পনা করা হচ্ছে। এ অবস্থায় জরুরি ভিত্তিতে ইমরানের নিরাপত্তা জোরদারের প্রয়োজনীয়তার কথা পুনর্ব্যক্ত করেছেন ফয়সাল।

সভা-সমাবেশে ভাষণ দেওয়ার সময় প্রধানমন্ত্রী ইমরানকে বুলেটপ্রুফ গ্লাস ব্যবহার করার জন্য ক্ষমতাসীন দলের নেতারা অনুরোধ জানিয়েছেন বলে উল্লেখ করেন ফয়সাল।

ফয়সাল বলেন, প্রধানমন্ত্রী ইমরান একজন সাহসী ব্যক্তি। তিনি পাকিস্তানের বিষয়ে আপস করবেন না। তিনি কারও কাছে জাতির মাথা নত হতে দেবেন না।
পিটিআইয়ের এই নেতার ভাষ্য, প্রধানমন্ত্রী ইমরান আগেও জীবননাশের হুমকি পেয়েছেন। এখন সেই পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য একটি ষড়যন্ত্র চলছে।

ইমরানের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে ক্ষমতাসীন সরকারের জোটসঙ্গী মুত্তাহিদা কওমি মুভমেন্ট পাকিস্তান (এমকিউএম-পি)। গতকাল সংবাদ সম্মেলন করে সরাসরি এ ঘোষণা দেয় তারা। এ ঘোষণার পর ইমরান-বিরোধীদের পাল্লা ভারী হলো।

অর্থনৈতিক অব্যবস্থাপনা ও ভুল পররাষ্ট্রনীতির অভিযোগ তুলে গত সোমবার পাকিস্তানের পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ জাতীয় পরিষদে অনাস্থা প্রস্তাব উত্থাপন করেন বিরোধী নেতারা। এরপর আজ বৃহস্পতিবার বিকেল চারটা পর্যন্ত পরিষদের অধিবেশন মুলতবি ঘোষণা করেন স্পিকার আসাদ কায়সার। আজ অধিবেশনে ওই প্রস্তাবের ওপর বিতর্ক শুরুর কথা রয়েছে।

পাকিস্তান সংবিধান অনুযায়ী, জাতীয় পরিষদে অনাস্থা প্রস্তাব পেশ করা হলে তার অন্তত তিন দিন পর এবং সাত দিনের মধ্যে ভোটাভুটি আয়োজন করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। একাধিক সূত্র বলছে, আগামী সোমবার অনাস্থা ভোট হতে পারে।

খাতা-কলমের হিসাবে পাকিস্তানের জাতীয় পরিষদে মোট আসন ৩৪২টি। ইমরানকে ক্ষমতাচ্যুত করতে অনাস্থা প্রস্তাবের পক্ষে ১৭২টি ভোটের প্রয়োজন হবে।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে জিও টিভির প্রতিবেদন অনুযায়ী, জাতীয় পরিষদে এখন ইমরানের পক্ষে রয়েছেন ১৪২ আইনপ্রণেতা। আর তাঁর বিপক্ষে রয়েছেন ১৯৯ আইনপ্রণেতা।

পাকিস্তান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন