এক টুইট বার্তায় মাশওয়ানি বলেন, অনলাইনে চার সপ্তাহ ধরে কিছু লোক প্রতিনিয়ত আরসালান খালিদকে হুমকি দিয়ে আসছিলেন।

ঘটনা তদন্তে ফেডারেল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি-এফআইএকে হস্তক্ষেপের অনুরোধ জানিয়েছে পিটিআই। এক টুইট বার্তায় দলটি বলেছে, আরসালান খালিদ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কখনো কাউকে হয়রানি করেননি। এ ছাড়া কোনো প্রতিষ্ঠানকেও আক্রমণ করেননি তিনি।

শেষ রাতের এ ঘটনার পর আরসালান খালিদের সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি বলে জানিয়েছেন মাশওয়ানি। তবে পিটিআই নেতা ও পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক কর্মকর্তা শাহবাজ গিল এক টুইট বার্তায় লিখেছেন, আগে থেকেই ধারণা করা হচ্ছিল খালিদের বাড়িতে অভিযান হতে পারে। এ কারণে তাঁকে নিরাপদ একটি স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।