প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কায় পাকিস্তানের করাচি নগরের মর্গগুলো গতকাল রোববার বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

জিও টিভি অনলাইনের প্রতিবেদনে জানানো হয়, সম্প্রতি করাচির ইদি মর্গে দুটি লাশ নিয়ে আসা হয়। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ওই দুজনের মৃত্যু হয়েছে সন্দেহে ২৯ মার্চ শহরের মর্গগুলো বন্ধ হয়ে যায়।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে করাচির একজন প্রশাসনিক কর্মকর্তা বলেন, করোনাভাইরাসের ভয়ে শহরের মর্গগুলো বন্ধ করা হয়েছে। কারণ, ওই মৃত ব্যক্তিদের মাধ্যমে এই ভাইরাস আরও ছড়িয়ে পড়তে পারে।

এদি হোম অফিসের একজন কর্মকর্তা এই তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বর্তমানে কফিন তৈরির ফরমাশ নেওয়া স্থগিত করা হয়েছে।

default-image

রমজান ছিপা নামের একজন বলেন, করোনাভাইরাস প্রতিরোধে তাঁর প্রতিষ্ঠান সাময়িকভাবে মর্গগুলো বন্ধ রেখেছে। তিনি বলেন, ‘আমরা চাই না শহর ও স্বেচ্ছাসেবকদের মধ্যে এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ুক।’

প্রতিবেদনে বলা হয়, করোনাভাইরাস ঠেকাতে সিন্ধু প্রদেশের সরকার এর মধ্যে সেখানে লকডাউন জারি করেছে। এ কারণে কেউ বাসা থেকে বাইরে বের হতে পারছে না। এ কারণে গোরখোদকদের কোনো হদিস নেই।

একটি কবরস্থানের পরিচালক বলেন, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার ভয় পাচ্ছে গোরখোদকেরা।

সাধারণ নাগরিকেরা অভিযোগ করেছেন, এই মহামারির সময়ে স্বাভাবিক মৃত্যু হওয়া স্বজনদের কোথাও কবর দেওয়ার জায়গা পাচ্ছেন না তাঁরা।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0