পাঞ্জাবে প্রতিদিন চার থেকে পাঁচটি ধর্ষণের ঘটনা ঘটছে বলে জানান আত্তা তারার। তিনি বলেন, এ পরিস্থিতিতে সরকার যৌন হয়রানি, নির্যাতন ও নিগ্রহের ঘটনা মোকাবিলায় বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণের বিষয়টি বিবেচনায় নিয়েছে।

আত্তা তারার বলেন, পাঞ্জাবে ধর্ষণের ঘটনা মোকাবিলায় প্রশাসন জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছে।

ক্রমবর্ধমান ধর্ষণের ঘটনা মোকাবিলায় পাঞ্জাব সরকার সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, নারী অধিকারকর্মী, শিক্ষক ও আইনজীবীদের সঙ্গে পরামর্শ করবে বলে জানান আত্তা তারার।

নিরাপত্তার গুরুত্ব সম্পর্কে সন্তানদের শিক্ষা দিতে অভিভাবকদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন পাঞ্জাবের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

আত্তা তারার বলেন, পাঞ্জাব সরকার ধর্ষণবিরোধী অভিযান শুরু করেছে। বেশ কয়েকটি ঘটনায় অভিযুক্ত ব্যক্তিদের আটক করা হয়েছে। শিক্ষার্থীদের স্কুলে যৌন হয়রানি সম্পর্কে সচেতন করা হবে।

পাঞ্জাবের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সন্তানদের কীভাবে রক্ষা করতে হবে, তা মা–বাবাদের শেখার সময় এসেছে।

পাকিস্তান নারীর প্রতি সহিংসতার মহামারিতে ভুগছে। বৈশ্বিক লিঙ্গবৈষম্য সূচক ২০২১ অনুযায়ী, বিশ্বের ১৫৬টি দেশের মধ্যে পাকিস্তানের অবস্থা ১৫৩তম।

পাকিস্তান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন