default-image

পাকিস্তানে করোনাভাইরাস সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হয়েছে। দেশটির প্রধানমন্ত্রীর স্বাস্থ্যবিষয়ক বিশেষ সহকারী ফয়সাল সুলতান গতকাল মঙ্গলবার আনুষ্ঠানিকভাবে এ কথা জানান। পাকিস্তানের ইংরেজি দৈনিক ডনের প্রতিবেদনে আজ বুধবার এ তথ্য জানা যায়।

গতকাল গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে এক আলোচনায় ফয়সাল সুলতান বলেন, পাকিস্তানে দিন দিন কোভিড-১৯–এর সংক্রমণ বাড়ছে। কয়েক দিন আগে দৈনিক সংক্রমণের সংখ্যা ছিল ৪০০ থেকে ৫০০। এখন তা ৭০০ থেকে ৭৫০ হচ্ছে। এর পাশাপাশি বাড়ছে মৃত্যুর হারও। পরীক্ষার তুলনায় শনাক্তের সংখ্যা আগে ছিল ২ শতাংশের কম। এখন এটি প্রায় ৩ শতাংশের কাছাকাছি।

বিজ্ঞাপন

পাকিস্তানে করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ার কারণ হিসেবে জনগণের অসচেতনতাকেই দায়ী করেন ফয়সাল। তিনি বলেন, ‘স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ক্ষেত্রে যেসব নীতিমালা করা হয়েছে, তা কঠোরভাবে মেনে চলতে হবে। আমরা এটা মাঠপর্যায় থেকে শুরু করব। যেসব জেলায় সংক্রমণের হার বেশি, সেসব অঞ্চল থেকেই এ অভিযান শুরু হবে। আমরা কেন্দ্রীয়ভাবে বিধিনিষেধ জারি করেছি। তবে জেলা প্রশাসনকে বলা হয়েছে, তারা যেন বাস, বিয়ের অনুষ্ঠানস্থল, রেস্তোরাঁ—এসব জনবহুল এলাকায় কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার বিষয়টি দেখভাল করে। প্রয়োজনে অর্থদণ্ড দেওয়ার বিষয়টিও বিবেচনায় নিতে বলা হয়েছে।’

পাকিস্তানে গতকাল এক দিনে ৭৭৩ জনের করোনাভাইরাস সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। দেশটিতে পজিটিভ রোগীর সংখ্যা ১১ হাজার ১৯০। গত মাসে পজিটিভ রোগীর সংখ্যা ছয় হাজারে নেমে আসে। পাকিস্তানে কোভিড হাসপাতালে ভেন্টিলেটরের সংখ্যা ১ হাজার ৮৮৪টি। এর মধ্যে ৯৩টিতে এখন রোগী আছে।

মন্তব্য পড়ুন 0