default-image

পাকিস্তানের ক্ষমতাসীন দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) পাল্টা সমাবেশ করার পরিকল্পনা নিয়েছে। আজ সোমবার দেশটির দ্য ডন অনলাইনের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

পিটিআই-প্রধান ও প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে ক্ষমতা থেকে হটাতে দেশটির বিরোধী দলগুলো জোট গড়েছে। পাকিস্তান গণতান্ত্রিক আন্দোলন (পিডিএম) জোটের ব্যানারে বিরোধীরা ইতিমধ্যে পাকিস্তানজুড়ে বিক্ষোভ-সমাবেশ শুরু করেছে। পিডিএমের এই কর্মসূচির পরিপ্রেক্ষিতে পাল্টা কর্মসূচিতে শুরু করতে যাচ্ছে পিটিআই।

পিডিএমের কর্মসূচির পাল্টায় সমাবেশ আয়োজনের পরিকল্পনায় ইমরান সায় দিয়েছেন বলে পিটিআই সূত্র জানিয়েছে।

পিটিআইয়ের এম এন এ শওকত ভাট জানিয়েছেন, পাঞ্জাব প্রদেশের হাফিজাবাদে প্রথম সমাবেশটি অনুষ্ঠিত হবে। ৭ নভেম্বর সমাবেশটি হবে। সমাবেশে উপস্থিত হয়ে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ভাষণ দিতে পারেন। সমাবেশের প্রস্তুতি ইতিমধ্যে শুরু হয়ে গেছে।

শওকত আরও জানান, সমাবেশে ভাষণ দেওয়ার আগে প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান হাফিজাবাদ বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করতে পারেন।

বিজ্ঞাপন

পাঞ্জাব পিটিআইয়ের প্রেসিডেন্ট ইজাজ চৌধুরী জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান হাফিজাবাদ সফরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তবে তিনি সেখানকার সমাবেশে ভাষণ দেবেন কি না, তা আজকের মধ্যে নিশ্চিত হওয়া যাবে। তবে তিনি ভাষণ না দিলেও সমাবেশটি হবে।

গত ১৬ অক্টোবর পাঞ্জাবের গুজরানওয়ালা শহরে বিশাল সমাবেশ করে সরকারবিরোধী জোট পিডিএম। হাফিজাবাদের কাছেই গুজরানওয়ালা অবস্থিত।

২০২৩ সালে পাকিস্তানের পরবর্তী সাধারণ নির্বাচন হওয়ার কথা। কিন্তু সেই নির্বাচনের আগেই প্রধানমন্ত্রী ইমরানের পদত্যাগ চান বিরোধীরা।

বিরোধীদের অভিযোগ, ২০১৮ সালের নির্বাচনের মাধ্যমে ইমরানকে প্রধানমন্ত্রীর পদে বসানোর পেছনে সেনাবাহিনীর হাত রয়েছে। তিনি দেশ চালাতে ব্যর্থ হয়েছেন।

মন্তব্য পড়ুন 0