default-image

পাকিস্তানের খ্যাতিমান মানবাধিকারকর্মী, সাংবাদিক, কলাম লেখক ইবনে আবদুর রেহমান আর নেই। আজ সোমবার লাহোরে তিনি মারা যান বলে জানিয়েছে তাঁর পরিবার। তিনি আই এ রেহমান নামেই বেশি পরিচিত।

আই এ রেহমানের পরিবারের বরাত দিয়ে পাকিস্তানের সংবাদমাধ্যম ‘ডন’ জানিয়েছে, ৯০ বছর বয়সী আই এ রেহমান ডায়াবেটিস ও উচ্চ রক্তচাপে ভুগছিলেন। তিনি তিন ছেলে, দুই মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। ২০১৫ সালে তাঁর স্ত্রীর মৃত্যু হয়।
আই এ রেহমান ১৯৩০ সালের সেপ্টেম্বরে অবিভক্ত ভারতের হরিয়ানায় জন্মগ্রহণ করেন। ৬৫ বছরের বেশি সময় ধরে তিনি সাংবাদিকতা করেছেন। পাকিস্তানের পত্রিকা ডন-এ নিয়মিত কলাম লিখতেন। হিউম্যান রাইটস কমিশন অব পাকিস্তানে (এইচআরসিপি) সক্রিয় ছিলেন তিনি।

১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় তিনি উর্দু ভাষার ‘দৈনিক আজাদ’–এর ব্যবস্থাপনা সম্পাদক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। ১৯৭৮ থেকে ১৯৮৮ সাল পর্যন্ত দীর্ঘ এক দশক তিনি সাপ্তাহিক ‘ভিউ পয়েন্ট’–এর নির্বাহী সম্পাদক হিসেবে কাজ করেছেন। ওই সময় জিয়াউল হকের সেনাশাসনের কট্টর সমালোচক ছিলেন তিনি। ১৯৮৮ থেকে ১৯৯০ সাল পর্যন্ত ‘পাকিস্তান টাইমস’–এর এডিটর-ইন-চিফ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন আই এ রেহমান।

বিজ্ঞাপন

এইচআরসিপির পরিচালক হিসেবে টানা দুই দশক কাজ করেছেন আই এ রেহমান। ২০১৬ সালের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত তিনি সংস্থাটির মহাসচিবের দায়িত্ব সামলেছেন। আই এ রেহমানের লেখা তিনটি বই রয়েছে।

প্রখ্যাত সাংবাদিক ও মানবাধিকারকর্মী আই এ রেহমানের মৃত্যুতে পাকিস্তানের নাগরিক সমাজে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শোক জানিয়েছেন অনেকেই।

আইনজীবী সালমান আকরাম রাজা টুইটারে শোক প্রকাশ করে লিখেন, ‘আই এ রেহমানের মৃত্যুতে আমরা শোকাহত।’

শিক্ষাবিদ আমর আলী বলেন, ‘দেশজুড়ে মানবাধিকারকর্মীদের সাহসের প্রতীক ছিলেন তিনি।’

পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কোরেশি শোক জানিয়ে বলেছেন, ‘পাকিস্তান একজন মহান ব্যক্তিত্বকে হারাল।’

পাকিস্তান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন