গতকালের সমাবেশের পর ২০ মে নাগাদ দেশের বিভিন্ন এলাকায় আরও পাঁচটি সমাবেশ করবেন পিটিআই চেয়ারম্যান। প্রথম সমাবেশটি হবে ঝেলুমে। সর্বশেষ সমাবেশটি হবে ১৯ মে চাকওয়ালে।

জাতীয় পরিষদে অনাস্থা ভোটে গত ৯ এপ্রিল ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পর দেশজুড়ে একের পর এক সমাবেশ করছেন ইমরান খান। এসব সমাবেশে পিটিআই সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করার পেছনে ‘বিদেশি ষড়যন্ত্র’ ছিল বলে দাবি করে আসছেন তিনি। একই সঙ্গে তিন মাসের মধ্যে নতুন নির্বাচন আদায়েরও অঙ্গীকার করেন পিটিআই চেয়ারম্যান।

পিটিআই নেতা ও নিজের সাবেক সহকারী শাহবাজ গিলের দুর্ঘটনার প্রসঙ্গ টেনে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বলেন, তিনি সরকারকে সতর্ক করছেন। যদি ভবিষ্যতে কোনো পিটিআই কর্মীকে স্পর্শ করা হয়, তাহলে এ জন্য তিনি ‘থ্রি স্টুজেস ও তাদের যাঁরা পরিচালনা করেন’, তাঁদের দায়ী করবেন। ‘থ্রি স্টুজেস’ বলতে ক্ষমতাসীন জোট সরকারের তিন শরিক নেতাকে ইঙ্গিত করেছেন তিনি।

ইমরান খান বলেন, ‘আমি আমার বোন, ভাই, তরুণ ও মায়েদের প্রতি ইসলামাবাদে আসার আহ্বান জানাই। কারণ, এটা পাকিস্তানের বিষয়। আমি চাই, পা–চাটাদের এ কথা বলার জন্য, সবাই ইসলামাবাদে আসুক যে দাসত্ব ও আমদানি করা সরকার মেনে নেওয়া হবে না; দ্রুত নির্বাচন দেওয়া হোক।’

ক্ষমতাচ্যুত এই প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, জনগণ ঠিক করবে, কারা সরকার গঠন করবে; যুক্তরাষ্ট্র নয়।

পাকিস্তান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন