বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এদিকে, পাকিস্তানের নতুন প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফের সরকার আজ রোববার কাবুলের তালেবান সরকারকে জঙ্গিদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে। তবে গত শনিবারের হামলার বিষয়টি অবশ্য পাকিস্তান সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে নিশ্চিত করা হয়নি।

ইসলামাবাদের অভিযোগ, তারা ক্রমাগত সীমান্তের ওপার থেকে সন্ত্রাসী হামলার শিকার হচ্ছে। গত বৃহস্পতিবার উত্তর ওয়াজিরিস্তান জেলায় আফগানিস্তান থেকে আসা সন্ত্রাসীরা সাত সেনাকে হত্যা করেছে। এ অঞ্চলে তেহরিক–ই–তালেবান (টিটিপি) জঙ্গিরা এ ধরনের হামলার সঙ্গে জড়িত।

সংকটে নতুন সরকার

অনাস্থা ভোটে হেরে ইমরান খানের সরে যাওয়ার পর দেশটির নতুন প্রধানমন্ত্রী হয়েছেন পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজের (পিএমএল-এন) প্রধান শাহবাজ শরিফ। কিন্তু সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত মন্ত্রিসভা গঠন করতে পারেননি তিনি।

ইমরানবিরোধী আন্দোলনে শরিকদের অনেকে মন্ত্রিসভায় যোগ দিতে চাইছেন না। তাঁদের অনেকে সাংবিধানিক পদে তথা প্রেসিডেন্ট, স্পিকার, গভর্নর ইত্যাদি পদে যোগ দিতে আগ্রহী হলেও মন্ত্রিসভায় যেতে চাইছেন না। এমনটাই ইঙ্গিত দিলেন পাকিস্তান পিপলস পার্টির (পিপিপি) কো-চেয়ারম্যান আসিফ আলী জারদারি।

পাকিস্তানের দ্য এক্সপ্রেস ট্রিবিউন–এর খবরে বলা হয়েছে, পিপিপি মন্ত্রণালয়ের চেয়ে সাংবিধানিক দপ্তরের পদগুলোর দিকে বেশি আগ্রহী। এরই মধ্যে পার্লামেন্টের নতুন স্পিকার হয়েছেন পিপিপির রাজা পারভেজ আশরাফ। এরপর ডেপুটি স্পিকার, সিনেট চেয়ারম্যান এবং প্রেসিডেন্টের পদের দিকে নজর দলটির। কারণ, ধারণা করা হচ্ছে, আরিফ আলভি শিগগিরই পদত্যাগ করতে পারেন। যদি এমনটা ঘটে, তবে পিপিপি প্রেসিডেন্ট চাইবে।

১১ এপ্রিল দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে পিপিপিকে মন্ত্রিসভায় যোগ দেওয়ার জন্য জোর দিয়ে আসছেন প্রধানমন্ত্রী শাহবাজ শরিফ। তবে ক্ষমতাসীন জোটের দ্বিতীয় বৃহত্তম দল পিপিপি তাঁকে বলেছে যে মন্ত্রিসভার বাইরে থাকার সময় তারা তাঁকে সমর্থন করতে বেশি আগ্রহী। প্রধানমন্ত্রী নতুন মন্ত্রিসভা গঠনের জন্য সময় নিচ্ছেন। কারণ, তিনি মিত্রদের সঙ্গে নিয়েই এগিয়ে যেতে চান। বিশেষ করে যাঁরা পিটিআইয়ে নেতৃত্বাধীন ক্ষমতাসীন জোট ছেড়ে বিরোধী দলে যোগ দিয়েছিলেন, তাঁদের সবাইকে নিয়ে সরকার চালাতে চান শাহবাজ।

পিটিআইকে রাজনীতি থেকে সরাতে চাইছে সরকার: ইমরান

জিও নিউজ জানায়, পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও পিটিআইয়ের চেয়ারম্যান ইমরান খান অভিযোগ করেছেন, বিদেশি অনুদানসংক্রান্ত মামলার মধ্য দিয়ে তাঁর দলকে রাজনীতি থেকে সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছে সরকার। বিচারে স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে পিপিপি, পিটিআই ও পিএমএল-এনের মামলাগুলোর শুনানি একই সময়ে করার দাবি জানিয়েছেন তিনি। শনিবার করাচির বাঘ-ই-জিন্নাহতে এক সমাবেশে এসব কথা বলেন ইমরান। তাঁর দাবি, পিটিআইকে রাজনৈতিক অঙ্গন থেকে বিদায় করার জন্য মামলা দেওয়া হয়েছে। ইমরান বলেন, ‘আমি বলব, বিদেশি অনুদানের মামলা ও তাঁর (শাহবাজ শরিফ) বিরুদ্ধে হওয়া দুর্নীতির মামলার শুনানি একসঙ্গে হওয়া উচিত।’

পাকিস্তানের সদ্য সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী বলেন, তাঁর দেশের বিরুদ্ধে বড় ধরনের আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্র হয়েছে। ইমরানের দাবি, তিনি যত দিন ক্ষমতায় ছিলেন, তত দিন মানবতার জন্য কাজ করেছেন। কোনো দেশের বিরুদ্ধে অবস্থান নেননি।

পাকিস্তান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন