default-image

লন্ডনে পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের বাসভবনের সামনে রোববার সন্ধ্যায় বিক্ষোভ করেছেন একদল তরুণ। পাকিস্তানের রাজনীতিতে দেশটির সামরিক বাহিনীর হস্তক্ষেপ নিয়ে তাঁর অগ্নিঝরা বক্তব্য দেওয়ার ঠিক এক সপ্তাহের মাথায় এ ঘটনা ঘটল। পাকিস্তানের ইংরেজি দৈনিক ডন সোমবার এ খবর দিয়েছে।

ঘটনার ভিডিও ফুটেজ হাতে পেয়েছে ডন। তাতে মাথায় হুডি ও মুখে মাস্ক পরা ২০ জনের বেশি তরুণকে দেখা গেছে। ওই তরুণেরা লন্ডনে নওয়াজ শরিফের বাসভবনের সামনে দিয়ে যাওয়া ডুনরাভেন স্ট্রিটে চক্কর দিতে থাকেন। সবার মুখে একই স্লোগান, ‘নওয়াজ, দূর হও’। বেশ কয়েকজনের হাতে ছিল পোস্টার। তাতে লেখা, ‘আমরা পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর পাশে আছি’। একটি পোস্টারে লেখা ছিল, ‘নওয়াজ শরিফ চোর’।

শরিফ পরিবারের সূত্রগুলো জানিয়েছে, বিক্ষোভকারী তরুণেরা পাঞ্জাবি ভাষায় কথা বলছিলেন। তাঁরা নানাভাবে গালাগাল করতে থাকেন। লন্ডন মেট্রোপলিটন পুলিশকে খবর দেওয়া হয়। কিন্তু পুলিশের গাড়ি পৌঁছানোর আগেই ওই তরুণেরা চলে যান। তবে পোস্টারগুলো ফেলে রেখে যান। এ বিষয়ে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

২০ সেপ্টেম্বর পাকিস্তানে বিরোধী দলগুলোর এক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। লন্ডন থেকে ভিডিও লিংকের মাধ্যমে ওই সম্মেলনে বক্তব্য দেন নওয়াজ শরিফ। বক্তব্যে তিনি পাকিস্তানের রাজনীতিতে সামরিক বাহিনীর হস্তক্ষেপের অভিযোগ নিয়ে খোলামেলা কথা বলেন। তিনি দেশটিতে বেসামরিক সরকারের কর্মকাণ্ডে সশস্ত্র বাহিনীর নাক গলানো বন্ধ করার দাবি জানান। পরে সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে নানাভাবে ব্যাখ্যা দিয়ে বলা হয়েছে, তারা রাজনৈতিক কোনো বিষয়ে সম্পৃক্ত নয়।

তিন মেয়াদে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর পদে বসা নওয়াজ শরিফ কোনোবারই মেয়াদ শেষ করতে পারেননি। শেষ মেয়াদে সুপ্রিম কোর্টের এক আদেশে ২০১৭ সালে তিনি ক্ষমতা ছাড়তে বাধ্য হন। ২০১৯ সালের নভেম্বর থেকে তিনি যুক্তরাজ্যে বসবাস করছেন। দেশে তাঁর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা রয়েছে।

মন্তব্য পড়ুন 0