বৃহস্পতিবার নামাজ আদায়ে মসজিদে নববীতে যান শাহবাজ শরিফ ও তাঁর সফরসঙ্গীরা। একপর্যায়ে তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী মরিয়াম আওরঙ্গজেব ও মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ মন্ত্রী শাহজিয়ান বুগতি পৌঁছালে একদল মুসল্লি তাঁদের লক্ষ্য করে ‘চোর চোর’ বলে স্লোগান দিতে থাকেন। তাঁরা সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রিত্ব হারানো ইমরান খানের পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) সমর্থক বলে সন্দেহ করা হচ্ছে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়া একটি ভিডিওতে দেখা যায়, বিক্ষোভকারীরা এই দুজনের দিকে তেড়ে যান। তাঁরা শাহজিয়ানের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন এবং তাঁর চুল ধরে টান দেন। দুজনকে নিরাপদ স্থানে সরিয় নিতে দেখা যায় নিরাপত্তারক্ষীদের।
ঘটনার বিষয়ে বুগতি বলেন, ‘আমি মক্কা-মদিনাকে অনেক সম্মান করি। এখানে কেউ উচ্চ স্বরে কথা বলেন না। যাঁরা মরিয়ামকে নিয়ে অপমানজনক মন্তব্য করেছেন, তাঁরা এখনো এখানে আছেন। তাঁদের গ্রেপ্তারের খবরটি ভুয়া।’

এ ঘটনায় ইমরান খানের নাম উল্লেখ না করে মরিয়াম আওরঙ্গজেব বলেন, ‘এ ঘটনার জন্য দায়ী ব্যক্তির নামটি আমি মুখে নিতে চাই না। কারণ, রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে এই পবিত্র ভূমিকে আমি ব্যবহার করতে চাই না।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের সমাজকে এসব মানুষ যে ধ্বংস করে দিয়েছে, তা থেকে উত্তরণের উপায় বের করতে আমাদের সময় লাগবে। ইতিবাচক আচরণের মাধ্যমেই কেবল আমরা এই কাজটা করতে পারি।’ পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজের (পিএমএল-এন) কর্মীদের শান্ত থাকার নির্দেশনা রয়েছে বলেও জানান মরিয়াম আওরঙ্গজেব।

জাতীয় পরিষদে বিরোধী জোটের আনা অনাস্থা প্রস্তাবে হেরে ৯ এপ্রিল বিদায় নেয় ইমরান খানের সরকার। এরপর জোট সরকার গঠন করা হলে নতুন প্রধানমন্ত্রী হন শাহবাজ শরিফ। তবে এই রাজনৈতিক পালাবদলে বিদেশি ষড়যন্ত্র থাকার অভিযোগ ওঠায় দলগুলোর মধ্যে তিক্ততা মারাত্মক পর্যায়ে পৌঁছেছে।

পাকিস্তান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন