পাকিস্তান সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে বলা হয়, অপ্রমাণিত, মানহানিকর ও উসকানিমূলক বক্তব্য-মন্তব্যের এই অনুশীলন অত্যন্ত ক্ষতিকারক।

পাকিস্তানের সশস্ত্র বাহিনী এ ধরনের বেআইনি ও অনৈতিক অনুশীলনের কঠোর প্রতিবাদ জানায় বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, পাকিস্তান সেনাবাহিনী আশা করে, সবাই আইন মেনে চলবে। পাকিস্তানের সর্বোত্তম স্বার্থে সশস্ত্র বাহিনীকে সবাই রাজনৈতিক আলোচনা থেকে দূরে রাখবে।

গত মাসে পার্লামেন্টে বিরোধীদের আনা অনাস্থা ভোটে ক্ষমতাচ্যুত হয় ইমরান খানের সরকার। পিটিআইয়ের নেতৃত্বাধীন এ সরকারকে টিকিয়ে রাখার জন্য কোনো পদক্ষেপ না নেওয়ায় পাকিস্তান সেনাবাহিনীর সমালোচনা করছেন ইমরানের সমর্থকেরা।

ইমরানের পতনের পর পিএমএল-এনের নেতা শাহবাজ শরিফের নেতৃত্বে নতুন সরকার গঠিত হয়েছে।

এখন দুই পক্ষের মধ্যে নানা বিষয়ে কাদা–ছোড়াছুড়ি চলছে। এতে সেনাবাহিনীর প্রসঙ্গও আসছে।

পাকিস্তান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন