default-image

সরকার পরিচালনার বিষয়ে সামরিক বাহিনীর কাছ থেকে তাঁর ওপর ‘কোনো চাপ’ নেই বলে দাবি করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। গতকাল শনিবার দেশটির গণমাধ্যম এক্সপ্রেস নিউজকে দেওয়া একান্ত সাক্ষাৎকারে তিনি এ দাবি করেন।

পাঞ্জাব প্রদেশের ক্ষমতায় আছে ইমরানের দল পিটিআই। সেখানকার মুখ্যমন্ত্রী ওসমান বাজদার প্রদেশের কয়েকজন পুলিশ কর্মকর্তা এবং সরকারি আমলাকে বদলি করেছেন। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ইমরান খান দাবি করেন, সেনাদের দাবিতে এটা করা হয়নি। এটা নিয়মিত কাজের অংশ হিসেবে করা হয়েছে। পাঞ্জাবে পিটিআই প্রথমবারের মতো সরকার গঠন করেছে।

মজার বিষয় হলো, এক ঘণ্টারও বেশি সময়ের সাক্ষাৎকারে মুলতানে বিরোধী নেতা-কর্মীদের সভা, কোভিড-১৯ মহামারি এবং সাম্প্রতিক সরকারের নানা পদক্ষেপের কোনো বিষয় নিয়ে কথা হয়নি।

বিজ্ঞাপন

প্রধানমন্ত্রী ইমরান বলেন, সেনাবাহিনী কাউকে কোনো পদে নিয়োগের জন্য তাঁকে কখনো বলেনি। বিভিন্ন সংস্থায় কর্মরত অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তাদেরও নিয়োগ দিতে বলেনি।

সম্প্রতি একটি সংস্থায় নিয়োগ অবসরপ্রাপ্ত লেফটেন্যান্ট জেনারেল অসিম সালিম বাজওয়াসহ সব সাবেক সামরিক ব্যক্তিকে যোগ্যতার ভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হয়েছিল।

অনেকের ধারণা, ইমরান খানকে সেনাবাহিনী ক্ষমতায় বসিয়েছে। আর সামরিক বাহিনীর চেয়েছে, অবসর কর্মকর্তাদের বিভিন্ন জায়গায় চাকরিতে বাধাহীনভাবে বসাতে পারে। আর ইমরানও এতে কোনো বাধা দেননি—এ অভিযোগ নিয়ে ইমরান বলেন, ‘নিয়োগের ক্ষেত্রে সেনাবাহিনীর কোনো চাপ না থাকলে কেন আমি তা প্রতিহত করতে যাব?’

ইমরান খান মনে করেন, ‘মানুষ মনে করে, পাকিস্তানের বিদেশনীতিতে হস্তক্ষেপ করে সেনাবাহিনী। কিন্তু আসলে তা না। আমাদের বিদেশনীতি বলে আমাদের দলের ম্যানিফেস্টো অনুযায়ী। সেনাদের কোনো চাপ নেই আমার ওপর। তবে সেনাবাহিনী আমাকে জানে আর জানে দেশের লুণ্ঠিত অর্থ কোথায় আছে।’ তিনি বলেন, ‘আইএসআই এবং আইবি সব জানে, যা আমি করি।’

মন্তব্য করুন