default-image

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের মধ্যেও স্বাভাবিক জীবনে ফেরার চেষ্টা করছে ব্রাজিলের সাও পাওলো। শহরটিতে শিক্ষার্থীদের স্কুলে ফেরাতে ব্যাপক আকারে করোনা পরীক্ষা করা শুরু হয়েছে গতকাল বৃহস্পতিবার থেকে।

কয়েকটি ধাপে পাবলিক স্কুলের শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও স্কুলের কর্মকর্তাদের করোনা পরীক্ষা করা হচ্ছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

ব্রাজিলের সাও পাওলো শহর কর্তৃপক্ষ ৩টি ধাপে ৭ লাখ ৭৭ হাজার করোনা পরীক্ষার পরিকল্পনা করেছে। প্রথম ধাপে ১ লাখ ৯৩ হাজার মানুষকে পরীক্ষা করা হবে।

বিজ্ঞাপন

শিক্ষার্থীদের স্কুলে ফেরানোর প্রক্রিয়া হিসেবে শিক্ষকদের পাশাপাশি তাদেরও করোনা পরীক্ষা করা হবে।

যুক্তরাষ্ট্রের বেশ কিছু স্কুলসহ অনেক জায়গাতেই এ কৌশল নেওয়া হচ্ছে। তবে সাও পাওলোর প্রচেষ্টাকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে দেখা হচ্ছে। শহরটিতে ১ কোটি ২০ লাখের বেশি মানুষ বাস করে। এখানে প্রায় ১৩ হাজার মানুষ করোনাভাইরাসের সংক্রমণে মারা গেছেন।

গত ২৩ মার্চ থেকে সাও পাওলোর স্কুল বন্ধ রয়েছে। রয়টার্স জানিয়েছে, প্রথম ধাপের করোনা পরীক্ষায় ৪৬৮টি পাবলিক হেলথ ক্লিনিকের কর্মীরা ১৫ দিন ধরে শহরে করোনা পরীক্ষার কাজ করবেন।

এদিকে ব্রাজিল সম্প্রতি চীনের সিনোভ্যাক বায়োটেকের করোনার টিকা পেতে গত বুধবার একটি চুক্তি করেছে। চুক্তি অনুযায়ী সিনোভ্যাকের ৪ কোটি ৬০ লাখ ডোজ সম্ভাব্য টিকা নেবে ব্রাজিল।

ব্রাজিলের জনবহুল সাও পাওলো রাজ্যে সিনোভ্যাকের টিকার তৃতীয় ধাপের পরীক্ষা চলছে।

সিনোভ্যাকের লাতিন আমেরিকার প্রধান জিয় হান বলেন, তাঁদের টিকার তৃতীয় ধাপের ফল দুই মাসের মধ্যে জানা যাবে।

মন্তব্য করুন