default-image

চীনের সিনোভ্যাকের তৈরি করোনাভাইরাসের টিকার ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল স্থগিত ঘোষণা করেছে ব্রাজিল। কোনো ‘বিরূপ ঘটনার’ কারণেই এ ট্রায়াল স্থগিত করা হয়েছে বলে জানায় দেশটির স্বাস্থ্যসংক্রান্ত নিয়ন্ত্রক সংস্থা। তবে সেই ‘বিরূপ ঘটনাটি’ আসলে কী, তা বিশদে বলা হয়নি সরকারের পক্ষ থেকে। আজ মঙ্গলবার এএফপির প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

গতকাল সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ ওষুধ কোম্পানি ফাইজার ঘোষণা দিয়েছে, তাদের তৈরি করোনাভাইরাসের টিকা ৯০ ভাগ পর্যন্ত সুরক্ষা দিতে পারে। এর খবরে বৈশ্বিক বাজার বেশ চনমনে হয়ে উঠেছে। আর এর ফলে এই মহামারি শেষ হওয়ার একটি আশাও সৃষ্টি হয়। কিন্তু এই আশাবাদের মধ্যে সিনোভ্যাকের টিকার পরীক্ষা বন্ধের এ খবর এল।

বিজ্ঞাপন

গতকাল বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, ৬টি দেশের প্রায় ৪৩ হাজার ৫০০ মানুষের ওপর ফাইজারের নতুন তৈরি টিকা প্রয়োগ করা হয়েছিল। টিকা নেওয়ার পর কারও দেহেই বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়নি। এসব তথ্য জানিয়ে ফাইজার ও বায়োএনটেক জানায়, এটি বিজ্ঞান ও মানবতার জন্য একটি গুরুত্বপূর্ণ দিন।

ব্রাজিলে চীনের টিকার পরীক্ষার নিয়ন্ত্রণকারী প্রতিষ্ঠান অ্যানভিসা জানায়, করোনাভ্যাক টিকার ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল স্থগিত করা হয়েছে গত ২৯ অক্টোবর ঘটা এক বিরূপ ঘটনার জন্য।

সিনোভ্যাকের টিকার নাম করোনাভ্যাক।

প্রতিষ্ঠানটি জানায়, টিকা ট্রায়ালের সময় মেনে চলা গোপনীয়তার কারণে এর চেয়ে বেশি কিছু তারা বলবে না।

তবে টিকার ট্রায়াল সাধারণত স্থগিত হয় যখন টিকা গ্রহণকারী কেউ গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে, ব্যাপক পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয় বা কারও মৃত্যু হয়।

অ্যানভিসা এ ঘটনার কারণ খতিয়ে দেখতে জোর অনুসন্ধান করছে।

মন্তব্য পড়ুন 0