বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সিএনএনের খবরে বলা হয়, মাত্র দুই মিটার আকারের ছোট্ট এ ডাইনোসরকে বলা হয় ‘অ্যাংকিলোসর’। ৭ কোটি ১৭ লাখ থেকে শুরু করে ৭ কোটি ৪৯ লাখ বছর আগের ক্রিটেসিয়াস যুগের শেষের দিকে এগুলোর অস্তিত্ব ছিল। চিলির দক্ষিণাঞ্চলের প্যাটাগোনিয়ার ম্যাগালানেস প্রদেশে এ ডাইনোসরের সম্পূর্ণ জীবাশ্ম খুঁজে পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা।


গত বুধবার নেচার সাময়িকীতে প্রকাশিত গবেষণাসংক্রান্ত নিবন্ধে বলা হয়েছে, এ ডাইনোসরের খুলির সঙ্গে অন্য অ্যাংকিলোসরের মিল রয়েছে। তবে পার্থক্য রয়েছে এর অদ্ভুত লেজের ক্ষেত্রে। এই ডাইনোসরের লেজে সাত জোড়া চ্যাপ্টা কাঁটা বা হাড়সদৃশ বস্তু দেখা যায়। এগুলো এমনভাবে সাজানো থাকে যা অনেকটা পাতার মতো দেখায়।

চিলি বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক ও গবেষণা নিবন্ধের প্রধান লেখক সার্জিও ছোটো আকু বলেন, ‘এ ডাইনোসরের লেজ অত্যন্ত অদ্ভুত। এই ডাইনোসরের ছোট লেজের অর্ধেকে হাড় থাকায় তা অনন্য অস্ত্র হিসেবে কাজে লাগত। এ লেজকে অনেকটাই র‌্যাটলস্নেক বা কাঁটাযুক্ত লেজের গিরগিটির সঙ্গে তুলনা করা যায়। তবে র‌্যাটলস্নেক বা গিরগিটির সঙ্গে ডাইনোসরের পার্থক্য হচ্ছে লেজের হাড়ে। এই ডাইনোসরের গণ হচ্ছে ‘স্টেগোসরাস’। গ্রিকে যার অর্থ ‘আচ্ছাদিত লেজ’। চিলির প্যাটাগোনিয়ায় ২০১৮ সালে জীবাশ্মটি পাওয়া যায়।

গবেষকেরা দাবি করেন, যে অঞ্চল থেকে এই জীবাশ্ম পাওয়া গেছে, সেখানে অ্যাংকিলোসর খুব কম পাওয়া গেছে। দক্ষিণ গোলার্ধের ডাইনোসরের তুলনায় চিলিতে পাওয়া ডাইনোসরগুলো আকারে ছোট ছিল। ওই অঞ্চলে খোঁজ পাওয়া অন্য জীবাশ্ম থেকে জানা যায়, যে সময় এসব ডাইনোসরের বিচরণ ছিল, তখন আবহাওয়া ছিল উষ্ণ।

লাতিন আমেরিকা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন