default-image

লাতিন আমেরিকার দেশ পেরু গত সপ্তাহে  চীনের সরকারি সংস্থা সিনোফার্মের কাছ থেকে করোনাভাইরাসের তিন লাখ টিকা হাতে পেয়েছে। টিকা পৌঁছানোর দুদিন পর দেশটিতে টিকাদান কার্যক্রম শুরু করা হয়। খবর এএফপির
দেশটি করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ে বেশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ৩ কোটি ৩০ লাখ জনসংখ্যার মধ্যে প্রায় ১২ লাখ মানুষের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। এর মধ্যে মারা গেছেন ৪২ হাজার মানুষ।

গতকাল মঙ্গলবার সকালে রাজধানী লিমার বেশ কয়েকটি হাসপাতালের স্বাস্থ্যসেবা কর্মীরা প্রথম এই ভ্যাকসিন নেন। সশস্ত্র বাহিনীর বিমানগুলো দেশের সবচেয়ে মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত অঞ্চলগুলো যেমন লিমার উত্তর-পূর্বে হুয়ানুকোর অঞ্চলগুলোতে টিকা নিয়ে যায়।

বিজ্ঞাপন

পেরু আগামী রোববার আরও ৭ লাখ চীনা টিকা পাবে। দেশটি ৩৮ লাখ ডোজ সিনোফার্ম ভ্যাকসিন এবং ফাইজার/বায়োএনটেকের আরও ২০ লাখ ডোজ টিকা কিনছে। এ ছাড়া চুক্তিতে ১ কোটি ৪০ লাখ (১৪ মিলিয়ন) অ্যাস্ট্রাজেনেকা/অক্সফোর্ড টিকা এবং ১ কোটি ৩০ লাখ কোভাক্স জ্যাব কেনার পরিকল্পনা করেছে। দেশটি ২ কোটি ৬০ লাখ নাগরিককে টিকা দেওয়ার পরিকল্পনা করেছে।

প্রতিবেশী দেশ চিলি এবং বলিভিয়া পেরুর প্রেসিডেন্ট ফ্রান্সিসকো সাগস্তিরকে টিকাদান কর্মসূচির বিলম্ব করার জন্য কঠোর সমালোচনা করেন।

পেরুর প্রেসিডেন্ট ফ্রান্সিসকোকে গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় লিমার একটি হাসপাতালে টিকা দেওয়া হয়। তিনি বলেন, টিকাকে ভয় পাবেন না।

দক্ষিণ আমেরিকা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন