বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

রিওর রাজ্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে বলা হয়, কেন্দ্র থেকে তাদের কাছে গত মাসের শনাক্ত রোগীর সংখ্যা তথ্য চাওয়া হয়। সে মোতাবেক তারা সেটা করেও পাঠায়। তাদের পাঠানো রোগীর সংখ্যাই শনিবারের হিসাবে ঢুকে পড়ে। হিসাবের গরমিলের কারণে শনিবারের করোনা রোগীর শনাক্ত বা মৃত্যুর সংখ্যা জানায়নি ব্রাজিলের কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

কেন্দ্রীয় সরকারের হিসাবের গরমিলের কারণে রিও ছাড়াও দেশটির উত্তর-পূর্বাঞ্চলের পারাইবা ও দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের সাও পাওলোতে সম্প্রতি করোনাভাইরাসের অস্বাভাবিক তথ্য দেখা যায়।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, করোনা মহামারি শুরুর পর থেকে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ৫ লাখ ৯০ হাজার ৫০৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সঙ্গে ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া শীর্ষ দেশগুলোর মধ্যে ব্রাজিলের অবস্থান দ্বিতীয়। এ ছাড়া দেশটির ২ কোটির বেশি মানুষ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

দক্ষিণ আমেরিকা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন