default-image

ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলা মাদুরোর ফেসবুক পেজ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। কোভিড-১৯–সংক্রান্ত নীতিমালা ভঙ্গের কারণে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ তাঁর পেজ বন্ধ করে দেয়।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ কথা জানানো হয়েছে। ফেসবুক কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, প্রেসিডেন্ট মাদুরোর পেজ থেকে কোভিড-১৯ ঘিরে ভুয়া তথ্য ছড়ানো হচ্ছিল। এটি ফেসবুকের নীতিমালার বিরোধী। ওই পেজ থেকে প্রেসিডেন্টের দাবি করা করোনার প্রতিষেধক নিয়ে তথ্য দেওয়া হচ্ছিল, যার কোনো প্রমাণ নেই।

গত জানুয়ারি মাসে মাদুরো করোনা সারাতে একটি মুখে খাওয়ার দ্রবণকে অলৌকিক ওষুধ বলে বর্ণনা করেছিলেন। এটি খেলে নিশ্চিত করোনা সারবে, এমন দাবিও করা হয়। কোভিড-১৯ নিয়ে মাদুরোর প্রচার করা একটি ভিডিও ফেসবুক সরিয়ে দেয়। কারণ, এটি ফেসবুকের নীতিমালা লঙ্ঘন করেছিল। তাদের নীতিমালায় আছে, কোভিড-১৯ প্রতিরোধে নিশ্চয়তা দিতে পারে বা সেরে ওঠার নিশ্চয়তা দেয়, এমন কিছু প্রচার করা যাবে না।

বিজ্ঞাপন

ফেসবুকের একজন মুখপাত্র বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, ‘আমরা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নীতিমালা অনুসরণ করি। সংস্থাটির তথ্য অনুযায়ী, করোনাভাইরাস নিরাময়ের জন্য বর্তমানে কোনো ওষুধ নেই। বারবার আমাদের নীতিমালা ভাঙার কারণে পেজটিকে আমরা এক মাসের জন্য বন্ধ করে দিয়েছি। এ সময় পেজটিতে কোনো কিছু পোস্ট করা যাবে না।’

ওই পেজের অ্যাডমিনকে নীতিমালা ভাঙার বিষয়টি জানানো হয়েছে। ফেসবুক বন্ধ হলেও মাদুরোর ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট বন্ধ হচ্ছে না।

এ বিষয়ে ভেনেজুয়েলার তথ্য মন্ত্রণালয় থেকে কোনো মন্তব্য করা হয়নি। গত মাসে মাদুরো ফেসবুকের বিরুদ্ধে ভিডিও সেন্সর করার অভিযোগ তুলেছিলেন।
মাদুরো প্রায় সময়ে ফেসবুক ও টুইটার ব্যবহার করেন। তাঁর বিভিন্ন বক্তব্যও ফেসবুকে সরাসরি সম্প্রচার করা হয়।

দক্ষিণ আমেরিকা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন