ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলা মাদুরো আগামী ৩০ দিনের জন্য বিদ্যুৎ রেশনিং ব্যবস্থা ঘোষণা করেছেন। দেশটিতে মার্চের শুরু থেকে শুরু হওয়া মারাত্মক বিদ্যুৎ-বিভ্রাটের ঘটনায় সরকারের পক্ষ থেকে স্কুল বন্ধ এবং কর্মঘণ্টা কমিয়ে আনার সিদ্ধান্ত হয়। এর পরপরই রোববার মাদুরোর ঘোষণা আসে।

বিদ্যুৎ-বিভ্রাট এবং পানি সরবরাহে বিঘ্ন ঘটায় রাজধানী কারাকাসের সড়কে সড়কে শনিবার বিক্ষোভ করেন বিক্ষুব্ধ জনতা।

ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলা মাদুরো এবং বিরোধী নেতা হুয়ান গুয়াইদোর মধ্যে ক্ষমতার টানাপোড়েনের মধ্যেই এই বিদ্যুৎ-বিভ্রাটের ঘটনা নতুন মাত্রা যোগ করেছে। শুক্রবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাতটার দিকে রাজধানী কারাকাস এবং দেশটির ২৩টি অঙ্গরাজ্যের অন্তত ২০টি বিদ্যুৎ-বিভ্রাটের কবলে পড়ে। এই বিভ্রাটের শুরু গত ৭ মার্চ।

রোববার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনে নিকোলা মাদুরো বলেন, বিদ্যুৎ রেশনিংয়ের, অর্থাৎ বরাদ্দ কমিয়ে আনার ‘৩০ দিনের পরিকল্পনা’ তিনি অনুমোদন করেছেন। এই রেশনিং ব্যবস্থা কীভাবে কাজ করবে, সে ব্যাপারে বিস্তারিত ব্যাখ্যা দেননি তিনি। তবে পানি সরবরাহের নিশ্চয়তায় জোর দিয়েছেন মাদুরো। যদিও বিদ্যুৎ-বিভ্রাটের কারণে দেশবাসীর অনেকেই টিভিতে প্রচারিত মাদুরোর এই ঘোষণা সরাসরি দেখতে পারেননি।

ওই দিনই এর আগে বিদ্যুৎ ঘাটতির জন্য সরকারিভাবে বিভিন্ন পদক্ষেপ ঘোষণা করা হয়।

এদিকে বিরোধী নেতা হুয়ান গুয়াইদো ভেনেজুয়েলা বিদ্যুৎ-বিভ্রাটের কবলে পড়লেই জনগণকে সড়কপথে অবস্থান নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।

ভেনেজুয়েলান অ্যাসোসিয়েশন অব ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের প্রধান উইনটন কাবাস বলেন, পরিস্থিতি অত্যন্ত নাজুক। সামনের দিনে আরও বিদ্যুৎ-বিভ্রাট হবে। তখন বিদ্যুতে রেশনিং ব্যবস্থাই চলবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0