default-image

কলম্বিয়া সীমান্তে থাকা মাইন সরিয়ে নিতে সহায়তা করতে জাতিসংঘকে অনুরোধ করবে ভেনেজুয়েলা। দেশটির সরকার গতকাল রোববার জানিয়েছে, এ বিষয়ে ‘তাৎক্ষণিক সহায়তা’ চাওয়া হবে।

বার্তা সংস্থা এএফপির খবরে বলা হয়েছে, গত ২১ মার্চ থেকে কলম্বিয়ার সীমান্তবর্তী অঞ্চলে ভেনেজুয়েলার সামরিক বাহিনী ও বিভিন্ন সশস্ত্র গোষ্ঠীর মধ্যে সংঘাত চলছে। কারাকাস অভিযোগ করছে, কলম্বিয়ার সশস্ত্র বিভিন্ন গোষ্ঠী সীমান্তবর্তী এলাকায় মাইন পুঁতে রেখেছিল। এই মাইনগুলো নিরাপদে সরানোর জন্যই জাতিসংঘের সহায়তা চাওয়া হবে।

টেলিভিশনে প্রচারিত এক বক্তব্যে ভেনেজুয়েলার প্রেসিডেন্ট নিকোলা মাদুরো বলেছেন, কলম্বিয়ার সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলো ওই এলাকায় প্রচুর মাইন স্থাপন করে গেছে। কারাকাসের আনুষ্ঠানিক হিসাব অনুযায়ী, গতকাল সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলোর সঙ্গে ভেনেজুয়েলার সামরিক বাহিনীর সংঘাতে ১৫ জন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে ৬ জন ভেনেজুয়েলার সেনা এবং বাকিরা সশস্ত্র বাহিনীর সদস্য।

বিজ্ঞাপন

নিকোলা মাদুরো বলছেন, এসব সশস্ত্র গোষ্ঠী সীমান্তবর্তী এলাকা ছেড়ে যাওয়ার সময় অসংখ্য মাইন পুঁতে রেখে গেছে। এসব মাইন বিস্ফোরিত হয়ে বেশ কয়েকজন সেনাসদস্যের মৃত্যুও হয়েছে।

এদিকে ভেনেজুয়েলার সরকারি হিসাব অনুযায়ী, সাম্প্রতিক সংঘাতে ৩০ জনেরও বেশি মানুষ আহত হয়েছে। কলম্বিয়ার নিরাপত্তাসংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানিয়েছে, ওই সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলোর সদস্যরা কিছুদিন আগে ভেঙে যাওয়া বিদ্রোহী গোষ্ঠী ফার্কের সাবেক সদস্য। ২০১৬ সালে সরকারি পক্ষের সঙ্গে ঐতিহাসিক শান্তিচুক্তি করেছিল ফার্ক।

দক্ষিণ আমেরিকা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন