default-image

আগামী দশকে নিজেদের শিল্পকলার ভবিষ্যৎ নিয়ে একটি বক্তব্য দিয়েছিলেন ব্রাজিলের সংস্কৃতি মন্ত্রী রবার্তো আলভিম। কিন্তু সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সেই বক্তব্য ছড়িয়ে পড়ার পর তীব্র সমালোচনার শিকার হয়েছেন তিনি। অভিযোগ উঠেছে, হিটলারের মন্ত্রী গোয়েবলসের সুরে সুর মিলিয়ে বক্তব্যের বক্তব্য দিয়েছেন আলভিম।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দেশটির সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের টুইটার পেজ থেকে আলভিমের ছয় মিনিটের বক্তব্যের একটি ভিডিও শেয়ার করা হয়। ভিডিওটি শেয়ার হওয়ার পর থেকেই মন্ত্রীর সমালোচনা শুরু হয়। সমালোচনাকারীদের মতামত, আলভিমের বক্তব্যের একটি অংশের সঙ্গে হিটলারের প্রচারমন্ত্রী ও প্রোপাগান্ডা ছড়ানোর মূল কুশীলব জোসেফ গোয়েবলসের বক্তব্যের মিল রয়েছে।

বক্তব্যে মন্ত্রী আলভিম বলেছেন, ‘আগামী দশকে ব্রাজিলের শিল্প হবে বীরোচিত ও জাতীয়তাবোধ সম্পন্ন। এই শিল্প আমাদের দেশের জনগণের তীব্র আকাঙ্ক্ষার সঙ্গে গভীরভাবে সম্পর্কযুক্ত হবে, না হলে দিন শেষে এটি অর্থহীন হয়ে যাবে।’

আলভিমের এই বক্তব্যের সঙ্গে ‘জোসেফ গোয়েবলস: আ বায়োগ্রাফি’ বইয়ে উল্লিখিত গোয়েবলসের কিছু বক্তব্যের মিল খুঁজে পেয়েছেন অনেকে। হলোকস্টের সময় গোয়েবলস বলেছিলেন, ‘আগামী দশকের জার্মান শিল্পকলা হবে বীরত্বপূর্ণ, ইস্পাতকঠিন রোমান্টিক। এখানে আবেগের কোনো স্থান থাকবে না, পুরোটাই হবে বাস্তবসম্মত। এর সঙ্গে মানুষের তীব্র জাতীয় উন্মাদনা যুক্ত থাকবে, না হলে এটি সম্পূর্ণ অর্থহীন হয়ে পড়বে।’

গোয়েবলসের বক্তব্যের সঙ্গে নিজের বক্তব্য অনেকটাই মিলে যাওয়ার বিষয়টিকে আলভিম ‘সম্পূর্ণ কাকতালীয়’ বলে উল্লেখ করেছেন। ফেসবুকে আলভিম লিখেছেন, ‘পুরো বক্তব্যটি ছিল ব্রাজিলের শিল্পের সঙ্গে জাতীয়তাবোধের সম্পর্ক নিয়ে। কাকতালীয়ভাবে গোয়েবলসের একটি উক্তির সঙ্গে আমার বক্তব্যের একটি উক্তি মিলে গেছে। আমি তাঁকে উদ্ধৃত করে কোনো কথা বলিনি, কখনো বলব ও না।’ শুধু যে বক্তব্যে মিল ছিল তাই নয়, আলভিম যখন বক্তব্য দিচ্ছিলেন, তখন ব্যাকগ্রাউন্ড সংগীত হিসেবে হিটলারের প্রিয় নির্মাতা ওয়াগনারের একটি গানও বাজছিল! এই গান নিয়ে অবশ্য তিনি কোনো কথা বলেননি।

আলভিমের এমন বক্তব্যকে ‘অগ্রহণযোগ্য’ বলে উল্লেখ করেছেন ব্রাজিলের কংগ্রেসের নিম্নকক্ষের স্পিকার রদ্রিগো মাইয়া। আলভিম সব সীমা ছাড়িয়ে গেছেন বলে মন্তব্য করেছেন তিনি। আলভিমকে মন্ত্রীর পদ থেকে সরিয়ে দিতে প্রেসিডেন্ট জায়ার বোলসোনেরোর কাছে আহ্বানও জানিয়েছেন তিনি।

ব্রাজিলের ইহুদি সম্প্রদায়ভুক্ত নাগরিকদের সংগঠনও মন্ত্রীর এমন বক্তব্যের সমালোচনা করেছে। সংগঠনটি এক বিবৃতিতে বলেছে, নাৎসিজমের মোকাবিলা করতে ব্রাজিল নিজেদের অনেক বীর সৈন্যকে ইউরোপে পাঠিয়েছিল। ব্রাজিলের জনগণের এমন কিছু প্রাপ্য নয়।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0