default-image

বিদায়ের পরও আলোচনায় আছেন সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সিনেটে তাঁর অভিশংসন নিয়ে এবার আলোচনা চলছে।

রিপাবলিকান দলের সিনেটর মিচ ম্যাককনেল স্থানীয় সময় গতকাল বৃহস্পতিবার এক কনফারেন্স কলে অভিশংসন মোকাবিলা করার প্রস্তুতি নিতে ডোনাল্ড ট্রাম্পের আইনি দলকে দুই সপ্তাহ সময় দিতে বলেছেন।

কংগ্রেসের প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার অভিশংসন প্রস্তাবটি কবে সিনেটে পাঠাবেন, তা নিশ্চিত না। আগামী সপ্তাহে প্রস্তাবটি সিনেটে পাঠানো হতে পারে। এর পরদিন থেকেই এ নিয়ে কার্যক্রম শুরু হতে পারে। এ নিয়ে সিনেটে ডেমোক্র্যাট দলের নেতা চার্লস শুমার নিশ্চিত কিছু জানাননি। সিনেটর মিচ ম্যাককনেল বলেছেন, বিষয়টি নিয়ে সিনেটর শুমারের সঙ্গে আলোচনা চলছে।

ডেলাওয়ার থেকে নির্বাচিত ডেমোক্র্যাট সিনেটর ক্রিস কুনস সিএনএনকে বলেছেন, তিনি মনে করেন ডেমোক্র্যাট দলও ট্রাম্পকে সময় দিতে চায়। এতে ট্রাম্প সমর্থকেরা আত্মপক্ষ সমর্থনের জন্য পর্যাপ্ত সময় পাবেন।

বিজ্ঞাপন
default-image

স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, কংগ্রেস প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের অভিশংসনের জন্য প্রস্তুত ছিল। এখন সিনেট প্রস্তুত না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করা যেতে পারে। সিনেট থেকে প্রস্তুতির কথা জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

ন্যান্সি পেলোসি আরও বলেন, সিনেটকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে, কত দ্রুত অভিশংসন প্রক্রিয়া তারা কাজ শুরু করবে।

হোয়াইট হাউসের কমিউনিকেশন ডিরেক্টর কেইট বেডিংফিল্ডও বলেছেন, ডোনাল্ড ট্রাম্পের অভিশংসনের সময় নিয়ে সিনেট নেতৃত্বই সিদ্ধান্ত নেবেন।

ডোনাল্ড ট্রাম্প একজন আইনজীবীকে তাঁর অভিশংসন মোকাবিলার জন্য নিয়োগ দিয়েছেন। সাউথ ক্যারোলাইনার আইনজীবী বাচ বায়ারকে আইনজীবী হিসেবে ট্রাম্প নিয়োগ দিয়েছেন বলে তাঁর ঘনিষ্ঠ সহযোগী সিনেটর লিন্ডসে গ্রাহাম জানিয়েছেন।
সিনেটর গ্রাহাম বলেছেন, ট্রাম্পের অভিশংসন মোকাবিলার জন্য একটাই যুক্তি তুলে ধরা হবে। সেটি হলো, যুক্তরাষ্ট্রের সংবিধানে ক্ষমতা থেকে চলে যাওয়া কোনো প্রেসিডেন্টকে অভিশংসন করার নিয়ম নেই ।

রিপাবলিকানদের পক্ষ থেকে সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে আর অভিশংসন বিচারে দাঁড় না করাতে অনুরোধ জানানো হচ্ছে। বলা হচ্ছে, সংবিধানে এমন কোনো বিধান নেই। এ ছাড়া জো বাইডেনের ঐক্যের আহ্বানের সঙ্গে বিষয়টি সাংঘর্ষিক।

সিনেটকে সিদ্ধান্ত নিতে হবে, কত দ্রুত অভিশংসন প্রক্রিয়া তারা কাজ শুরু করবে।
ন্যান্সি পেলোসি

স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি রিপাবলিকানদের এমন অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করে দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, একজন প্রেসিডেন্ট ক্ষমতার শেষ সময়ে এসে যা ইচ্ছে তা করবেন , এমন উদাহরণ মেনে নেওয়া যায় না। এ প্রসঙ্গে তিনি ক্যাপিটল হিলে হামলার ঘটনা উল্লেখ করেন।

ডেমোক্র্যাটরা মনে করছেন, ট্রাম্পকে অভিশংসিত করতে তাঁরা সিনেটের ১৭ জন রিপাবলিকানের সমর্থন পেয়ে যাবেন। কংগ্রেস ও সিনেটে ডেমোক্র্যাট দল সংখ্যাগরিষ্ঠ। তবে সিনেটে রিপাবলিকানদের ১৭ জনের সমর্থন না পেলে অভিশংসন-চেষ্টা সফল না-ও হতে পারে।

১০০ আসনের মার্কিন উচ্চকক্ষ সিনেটে এখন ডেমোক্র্যাট ও রিপাবলিকানরা ৫০-৫০ আসনে রয়েছেন।

এদিকে আগামী সপ্তাহ থেকেই সিনেটে জরুরি ভিত্তিতে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের ১ দশমিক ৯ ট্রিলিয়ন ডলারের করোনা প্রণোদনা নিয়ে আলোচনা শুরু হবে। এই প্রণোদনা প্রস্তাব পাস করতে বাইডেনের পক্ষ থেকে রিপাবলিকানদের সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, অভিশংসন এবং করোনা প্রণোদনা নিয়ে কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই ওয়াশিংটন আবার উত্তপ্ত হয়ে উঠবে।

বিজ্ঞাপন
যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন