বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

কাতারের দোহায় গতকাল শুরু হয়েছে দুই দিনের ওই বৈঠক। প্রথম দিনের বৈঠক শেষে আফগান পররাষ্ট্রমন্ত্রী মুত্তাকি আফগানিস্তানের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা বখতারকে বলেন, ‘আমরা তাঁদের পরিষ্কার করে বলে দিয়েছি যে আফগান সরকারকে অস্থিতিশীল করার কোনো ধরনের চেষ্টা চালানো হলে তার ফল ভালো হবে না।’

এ ছাড়া এক বিবৃতিতে মুত্তাকি বলেন, ‘আফগানিস্তানের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখাটা সবার জন্যই ভালো হবে। আফগানিস্তানের বর্তমান সরকারকে দুর্বল করার কোনো চেষ্টা চালানো উচিত হবে না। এটি করা হলে তা জনগণের জন্য সমস্যা ডেকে আনতে পারে।’

তালেবান প্রতিনিধিদলের সঙ্গে শুরু হওয়া এ বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন দেশটির পররাষ্ট্র দপ্তরের আফগানবিষয়ক উপবিশেষ প্রতিনিধি টম উয়েস্ট এবং ইউএসএআইডির মানবিক সহায়তাবিষয়ক কর্মকর্তা সারাহ চার্লস। তালেবানের এ হুঁশিয়ারি বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রের তরফে কোনো প্রতিক্রিয়ার কথা জানা যায়নি।

গত ৩১ আগস্ট আফগানিস্তান থেকে পাততাড়ি গুটিয়ে চলে আসার পর এই প্রথম যুক্তরাষ্ট্রের একটি প্রতিনিধিদল তালেবান প্রতিনিধিদের সঙ্গে সরাসরি বৈঠক করছে। এর আগে ২০২০ সালে যুক্তরাষ্ট্রের কর্তৃপক্ষের সঙ্গে তালেবানের গোপন আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়েছিল। সেই আলোচনায় নেতৃত্ব দিয়েছিলেন আফগানবিষয়ক মার্কিন বিশেষ দূত জালমাই খালিজাদ। এবারের বৈঠকে খালিজাদ থাকছেন না বলে জানা গেছে।

মার্কিন কর্মকর্তারা জানান, বৈঠকে অন্যান্য বিষয়ের সঙ্গে আফগানিস্তানে অবস্থানরত মার্কিন নাগরিক, গ্রিন কার্ডধারী ও অন্য মার্কিন মিত্রদের নিরাপদে সরিয়ে আনার বিষয়টি প্রাধান্য পাচ্ছে। তা ছাড়া আফগানিস্তানে আন্তর্জাতিক সাহায্য সংস্থাগুলোর অবাধ প্রবেশাধিকার নিশ্চিত করতে বৈঠকে তালেবান প্রতিনিধিদের চাপ দেবেন তাঁরা।

নারীদের অধিকার নিশ্চিত করাসহ আফগানিস্তান যাতে জঙ্গিগোষ্ঠীদের অভয়ারণ্যে পরিণত না হয়, এ নিয়েও তালেবানকে অনুরোধ জানাবে মার্কিন প্রতিনিধিদল।
অন্তর্ভুক্তিমূলক সরকার গঠনে প্রস্তুত তালেবান

আল-জাজিরা জানায়, তালেবানের জ্যেষ্ঠ নেতা সুহাইল শাহিন বলেছেন, তাঁরা অন্তর্ভুক্তিমূলক সরকার গঠনের জন্য তৈরি আছেন। তবে এ ক্ষেত্রে কোনো ‘সিলেকশন’ হবে না। আফগানিস্তানে একটি অন্তর্ভুক্তিমূলক সরকার গঠনে পশ্চিমাদের অব্যাহত চাপের প্রেক্ষাপটে আল-জাজিরাকে দেওয়া এক একান্ত সাক্ষাৎকারে মন্তব্য করেন তিনি।

তালেবান নেতারা জানান, গত মাসে ঘোষিত আফগান মন্ত্রিসভায় বিভিন্ন জাতিগত গোষ্ঠীর প্রতিনিধিরা রয়েছেন। এখন মন্ত্রিসভায় নারীদের অন্তর্ভুক্ত করা হবে। সাক্ষাৎকারে সুহাইল শাহিন বলেন, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে অবশ্যই আফগান জনগণের আকাঙ্ক্ষার প্রতি সম্মান জানাতে হবে।

গত ১৫ আগস্ট পশ্চিমা-সমর্থিত আশরাফ গনি সরকারকে হটিয়ে আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ নেয় তালেবান। এর পর থেকে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের স্বীকৃতি পাওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে তারা। তবে পশ্চিমা দেশগুলো বলেছে, আফগানিস্তানে নারী ও সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষের ব্যাপারে তালেবানের দৃষ্টিভঙ্গি কী হয়, সেটির ওপরই নির্ভর করছে এই স্বীকৃতি।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন