আবারও ভোট চুরির অভিযোগ তুলেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।
আবারও ভোট চুরির অভিযোগ তুলেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। ফাইল ছবি: এএফপি

আবারও ভোট চুরির অভিযোগ তুলেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি বলেন, বৈধভাবে ভোট গণনা হলে তিনি জয়ী হতেন। সিএনএনের আজ শুক্রবারের খবরে জানা যায়, হোয়াইট হাউসের ব্রিফিংরুমে দেওয়া বক্তব্যে এসব অভিযোগ তোলেন ট্রাম্প। তিনি বলেন, জালিয়াতি করে তাঁকে প্রেসিডেন্ট পদ থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে।

ট্রাম্প বলেছেন, ‘যদি বৈধভাবে ভোট গণনা হয়, তাহলে আমি সহজেই জিতে যাই।’ তবে অভিযোগের সপক্ষে কোনো প্রমাণ দেখাতে পারেননি তিনি। বলেছেন, ‘অবৈধভাবে ভোট গণনা করা করা হচ্ছে। তাঁরা আমাদের কাছ থেকে নির্বাচন চুরি করার চেষ্টা করতে পারেন।’

বিজ্ঞাপন

নতুন জরিপে জর্জিয়া ও পেনসিলভানিয়ায় রিপাবলিকানদের এগিয়ে থাকার ব্যবধান কমে আসায় এমন মন্তব্য করেন ট্রাম্প। দেরিতে আসা ভোটের গণনা স্থগিতের পক্ষে ছিলেন বলে জানান ট্রাম্প। তিনি দাবি করেন, ‘এর মধ্যেই অনেক ঝুঁকিপূর্ণ অঙ্গরাজ্যে আমার জয় চূড়ান্ত হয়েছে।’ এর মধ্যে অনেক অঙ্গরাজ্যে বড় ব্যবধানে জয়ী হওয়ার দাবি করেন তিনি।

স্থানীয় সময় গত বুধবার হোয়াইট হাউসে জনসমক্ষে দেখা যায় ট্রাম্পকে। সেখানে তিনি নির্বাচনে জয়ী হয়েছেন বলে দাবি করেন।

এএফপির সর্বশেষ তথ্য অনুসারে, ট্রাম্প ২১৪টি ইলেক্টোরাল ভোটে জয়ী হয়েছেন। আর ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেন ২৬৪টি ইলেক্টোরাল ভোটে জয়ী হয়েছেন।
ভোট গণনা এখনো চলছে। এখন দুই প্রার্থীর চোখ পাঁচ অঙ্গরাজ্যের দিকে। এসব রাজ্যে দুই প্রার্থীর মধ্যে ব্যবধান এতটাই কম যে যেকেউ জয়ী হতে পারেন।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম চারটি অঙ্গরাজ্যের দিকে নজর রেখেছে। এগুলো হলো অ্যারিজোনা, জর্জিয়া, নেভাদা ও পেনসিলভানিয়া। আবার বার্তা সংস্থা রয়টার্সও অনুরূপ একটি তালিকা করেছে। সেই তালিকায় সিএনএনের তালিকায় উল্লিখিত নেভাদা না থাকলেও রয়েছে নর্থ ক্যারোলাইনা।

মোটাদাগে বলতে হয়, এবারের মার্কিন নির্বাচন পাঁচটি অঙ্গরাজ্যের ফলের ওপর বিশেষভাবে নির্ভর করছে। এগুলো হলো অ্যারিজোনা, জর্জিয়া, নেভাদা, পেনসিলভানিয়া ও নর্থ ক্যারোলাইনা।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0