কমলা হ্যারিস ও তাঁর স্বামী ডগলাস এমহফ
কমলা হ্যারিস ও তাঁর স্বামী ডগলাস এমহফছবি: রয়টার্স

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের স্ত্রীকে ডাকা হয় ফার্স্ট লেডি। আর ভাইস প্রেসিডেন্টের স্ত্রীকে বলা হয় সেকেন্ড লেডি। কিন্তু এবার ‘সেকেন্ড লেডি’ বলে যে কেউ থাকছেন না, তা স্পষ্ট। কারণ, আজ শনিবার রাত সাড়ে ১০টায় সিএনএন জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রার্থী জো বাইডেন। ফলে ভাইস প্রেসিডেন্ট হচ্ছেন তাঁর রানিং মেট কমলা হ্যারিস।


জো বাইডেন প্রেসিডেন্ট হওয়ায় ফার্স্ট লেডি হচ্ছেন তাঁর স্ত্রী জিল বাইডেন। কিন্তু এত দিন সেকেন্ড লেডি থাকলেও এবার তো আর সেকেন্ড লেডি থাকছেন না। তাহলে কী হবে?
যুক্তরাষ্ট্রে এই পরিস্থিতি এর আগে কখনো সৃষ্টি হয়নি। কারণ, দেশটি এ পর্যন্ত কোনো নারী ভাইস প্রেসিডেন্ট পায়নি। ফলে সেকেন্ড লেডির জায়গায় একজন পুরুষ হলে কী হবে, তা নিয়েও কখনো ভাবতে হয়নি।

বিজ্ঞাপন

এই আলোচনার শুরু মূলত ২০১৬ সালের নির্বাচনে। কারণ, সেবার নির্বাচনে ডেমোক্র্যাটদের প্রেসিডেন্ট প্রার্থী ছিলেন হিলারি ক্লিনটন। ফলে স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠেছিল, হিলারি জিতলে সাবেক প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটনকে কী ডাকা হবে? ‘ফার্স্ট জেন্টেলম্যান’, নাকি ‘ফার্স্ট স্পাউস’, নাকি ‘ফার্স্ট হাজবেন্ড’?


কিন্তু এই প্রশ্ন আর বেশি দূর এগোয়নি। কারণ, ওই নির্বাচনে রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থী প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আকস্মিক জয় পান।
কিন্তু এবার জো বাইডেনের জয় নিশ্চিত। ফলে কমলার স্বামী ডগলাস এমহফের সম্বোধন নিয়ে একটা টানাপোড়েন তৈরি হয়েছে।


কমলা ইতিহাস গড়ে ভাইস প্রেসিডেন্ট হয়েছেন। এ নিয়ে গত শুক্রবার রাতে সিএনএনের সরাসরি সম্প্রচারিত অনুষ্ঠানে বেশ আলোচনাও হয়েছে। সেই সময় আলোচনায় আসে কমলার স্বামীর সম্বোধনের বিষয়। দুই আলোচক বলেন, তাঁকে হয়তো ‘সেকেন্ড হাজব্যান্ড’ কিংবা ‘সেকেন্ড স্পাউস’ বলা হবে।
তবে এই সম্বোধন আগেই ঠিক করে রেখেছে নিউইয়র্ক টাইমস। গত আগস্টেই তারা ডগলাসকে ‘সেকেন্ড জেন্টেলম্যান’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছে।

মন্তব্য পড়ুন 0