বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ব্যানসেল আরও বরেন, নবজাতকদের জন্যও ‘শিগগিরই’ টিকাদান কর্মসূচি চালু করা সম্ভব হবে।

মডার্নার সিইও বলেন, ‘যাঁরা টিকা পাবেন না, তাঁদেরও প্রাকৃতিকভাবে রোগ প্রতিরোধক্ষমতা গড়ে উঠবে। কারণ, করোনার ডেলটা ধরন অত্যন্ত সংক্রামক।

এভাবেই আমরা করোনা মহামারি পরিস্থিতিকে সাধারণ ফ্লু পর্যায়ে নামিয়ে আনতে সক্ষম হব। হয় আপনি টিকা নিয়ে ভালোভাবে শীতকাল পার করবেন, নাহয় আপনি অসুস্থ হবেন এবং শেষ পর্যন্ত হাসপাতালে যেতে হবে।’

এর অর্থ কি আগামী বছরের মাঝামাঝিতে স্বাভাবিক অবস্থায় ফেরা যাবে—এ প্রশ্নের জবাবে ব্যানসেল বলেছেন, ‘আজকে থেকে এক বছরের মধ্যে আমরা স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরব বলে আমি মনে করি।’

ব্যানসেল আরও বলেন, সরকারের তরফ থেকে বুস্টার ডোজের অনুমোদন দেওয়া হবে বলে তিনি প্রত্যাশা করছেন। কারণ, গত শরৎকালে যাঁরা টিকা দিয়েছেন, তাঁরা এখন ঝুঁকির মুখে পড়তে পারেন। তাই তাঁদের নতুন ডোজ দরকার।

ব্যানসেল বলেন, ‘আমরা এখন করোনার ডেলটা ধরন প্রতিরোধ করতে পারে, এমন টিকার পরীক্ষা চালাচ্ছি। আগামী বছর তা বুস্টার ডোজের রূপ নেবে। এ ছাড়া আমরা ডেলটা প্লাস ও বিটা সংস্করণ নিয়েও কাজ করছি।’

মডার্না জানিয়েছে, বর্তমান উৎপাদন পদ্ধতিতেই করোনার নতুন ধরনের জন্য টিকা তৈরি করা যাবে। এতে করোনার টিকার দাম একই থাকবে।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন