বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ভাষণে আন্তোনিও গুতেরেস বলেন, বিশ্ব ক্রমেই দুটি ভিন্ন অর্থনীতি, বাণিজ্য, আর্থিক ও প্রযুক্তিগত নিয়মনীতি, কৃত্রিম বৃদ্ধিমত্তার উন্নয়নে দুটি স্বতন্ত্র পন্থায় বিভক্ত হয়ে পড়ছে। এমনকি দুটি পৃথক সামরিক ও ভূরাজনৈতিক কৌশলে বিভক্ত হয়ে পড়ছে পৃথিবী। এটি স্নায়ুযুদ্ধের সময়ের মতো সংকট বয়ে আনবে।

এ সংকট এড়াতে বিশ্বের দেশগুলোর মধ্যে পারস্পরিক বিশ্বাস ও সহযোগিতার সম্পর্ক জোরদার করা প্রয়োজন বলে মনে করেন জাতিসংঘের মহাসচিব। এ বিষয়ে আন্তোনিও গুতেরেস বলেন, ‘আমাদের বিশ্বাস স্থাপন করতে হবে। আলোচনা করতে হবে। পরাশক্তি হিসেবে যুক্তরাষ্ট্র ও চীনকে আলোচনায় বসতে হবে।’

গত ফেব্রুয়ারির পর থেকে মিয়ানমার ও গিনিতে সামরিক শাসকেরা ক্ষমতায় বসেছেন। আফগানিস্তানে পশ্চিমা সমর্থিত সরকারি বাহিনীকে হটিয়ে ক্ষমতায় এসেছে তালেবান। সামরিক শাসনের বিস্তার ঠেকানোকে অগ্রাধিকার দিতে বৈশ্বিক শক্তিগুলোর প্রতি আহ্বান জানান আন্তোনিও গুতেরেস। ভাষণে তিনি বলেন, ‘দেশে দেশে সামরিক শাসন ফিরে আসছে। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের মধ্যে ঐক্যের অভাব থাকায় এসব ক্ষেত্রে কার্যকর ভূমিকা রাখা যাচ্ছে না।’

তিনি আরও বলেন, ‘ভূরাজনৈতিক বিভক্তি আন্তর্জাতিক সহযোগিতা বৃদ্ধির পথে বাধা। এটা প্রয়োজনীয় সিদ্ধান্ত গ্রহণের ক্ষেত্রে নিরাপত্তা পরিষদের সক্ষমতাকে সীমিত করে দেয়।’

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন