default-image

যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তার জন্য রাশিয়া সবচেয়ে বড় হুমকি বলে মন্তব্য করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী জো বাইডেন। বাইডেনের এই মন্তব্যের তীব্র সমালোচনা করে সোমবার মস্কো বলেছে, বাইডেনের এই দৃষ্টিভঙ্গি ভুল এবং তা রাশিয়ার বিরুদ্ধে ঘৃণা উসকে দিয়েছে।

আগামী ৩ নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। এর এক সপ্তাহে আগে নির্বাচনে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রতিদ্বন্দ্বী বাইডেন রাশিয়ার বিষয়ে নিজের দৃষ্টিভঙ্গি প্রকাশ করলেন। জনমত জরিপে রিপাবলিকান ট্রাম্পের চেয়ে এগিয়ে রয়েছেন ডেমোক্র্যাট বাইডেন।

রোববার সিবিএসের ‘সিক্সটি মিনিটস’ নামের একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেন বাইডেন। সেখানে তিনি রাশিয়ার নাম নিয়ে বলেন, দেশটি ওয়াশিংটনের জন্য সবচেয়ে বড় হুমকির। আর আরেক ক্ষমতাধর দেশ চীনকে সবচেয়ে বড় প্রতিযোগী হিসেবে উল্লেখ করেন তিনি।

যদিও ট্রাম্প প্রশাসনের অনেকে যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তার জন্য চীনকেই সবচেয়ে হুমকি বলে মনে করে থাকেন।

রাশিয়া নিয়ে বাইডেনের ওই মূল্যায়নের বিষয়ে সোমবার সংবাদ সম্মেলনে ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্র পেসকভের কাছে প্রশ্ন ছুড়ে দেন সাংবাদিকেরা। জবাবে পেসকভ বলেন, ‘আমরা তাঁর মন্তব্যের বিষয়ে পুরোপুরি ভিন্নমত পোষণ করছি। আমরা অনুতপ্ত যে এভাবেই রাশিয়া ফেডারেশের প্রতি ঘৃণা ছড়ানো হয়।’

বিজ্ঞাপন

স্নায়ুযুদ্ধের পর যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া সম্পর্ক সবচেয়ে তলানিতে পৌঁছায় ২০১৪ সালে। ওই বছর ইউক্রেনের ক্রিমিয়াকে রুশ ফেডারেশনে অন্তর্ভুক্ত করা নিয়ে দুই দেশের মধ্যে কূটনৈতিক টানাপোড়েন বাড়ে। তখন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা প্রশাসনের ভাইস প্রেসিডেন্ট ছিলেন বাইডেন। বিশ্বের দুই পরাশক্তি দেশের মধ্যে সম্পর্ক আরও খারাপ হয় ২০১৬ সালের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রাশিয়ার হস্তক্ষেপের অভিযোগ ওঠার পর। মার্কিন গোয়েন্দাদের অভিযোগ, ওই নির্বাচনে ট্রাম্পকে জয়ী করতে রাশিয়ার গোয়েন্দারা তৎপরতা চালান। যদিও মস্কো ওই অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে। এবারের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনেও রাশিয়া হস্তক্ষেপ করার চেষ্টা চালাচ্ছে বলে মার্কিন গোয়েন্দারা দাবি করেছেন। তবে এই অভিযোগও অস্বীকার করেছে ক্রেমলিন।

ট্রাম্পের প্রতি রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের নমনীয়তার বিষয়টি আগেই প্রকাশ পেয়েছে তাঁর বিভিন্ন বক্তব্যের মাধ্যমে। ট্রাম্প মস্কোর সঙ্গে ভালো সম্পর্ক চান বলেও দাবি করেন পুতিন। বাইডেনের বক্তব্যের পর রোববার পুতিন বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে যে–ই ক্ষমতায় আসুন না কেন, রাশিয়া তাঁর সঙ্গে কাজ করবে। বাইডেনের রাশিয়াবিরোধী মন্তব্যের বিষয়টি ইঙ্গিত করে পুতিন বলেন, মস্কো ও রাশিয়ায় অতীত ব্যবসাসংক্রান্ত ছেলে হান্টার বাইডেনের অপরাধের বিষয়টি তাঁর (বাইডেন) চোখে পড়ে না।

মন্তব্য পড়ুন 0