default-image

যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান ও জর্জিয়ায় ট্রাম্প শিবিরের করা মামলা খারিজ করে দিয়েছেন স্থানীয় আদালতের বিচারকেরা। এ দুটি অঙ্গরাজ্য ট্রাম্প ও বাইডেনের মধ্যে তুমুল প্রতিযোগিতা হচ্ছে।

এ দুটি অঙ্গরাজ্যে মামলা খারিজ হলেও ট্রাম্প শিবির নেভাদায় ভোটে অনিয়মের অভিযোগ তুলে নতুন মামলা করার কথা বলছে। নেভাদায় অল্প ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছেন বাইডেন।

এ অঙ্গরাজ্যে বাইডেন জয় পেলেই তাঁর ২৭০ ইলেক্টোরাল ভোট হয়ে যাবে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

জর্জিয়ার মামলায় ট্রাম্প শিবিরের অভিযোগ ছিল, দেরিতে আসা ৫৩টি ব্যালট আগে আসা ব্যালটের সঙ্গে মেশানো হয়েছিল। মিশিগানে ভোট গণনা বন্ধের আশায় ট্রাম্পের প্রচার শিবির মামলাটি করেছিল।বৃহস্পতিবার দুটি মামলাই খারিজ করে দিয়েছেন আদালত।

বিজ্ঞাপন

জর্জিয়ায় সুপিরিয়র কোর্ট জাজ জেমস বাস বলেছেন, যেসব ব্যালট নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে তা যে অবৈধ এর কোনো প্রমাণ নেই।

মিশিগানের আদালতের বিচারক সিনথিয়া স্টিফেনস বৃহস্পতিবার ট্রাম্প শিবিরের করা মামলা খারিজের আদেশ দেন। এ–সংক্রান্ত লিখিত আদেশ মার্কিন সময় শুক্রবার দেবেন বলেও জানিয়েছেন তিনি। স্টিফেনস বলেছেন, এই মামলা চালিয়ে যাওয়ার কোনো ভিত্তি তিনি খুঁজে পাননি।

আদালতের রায় নিয়ে ট্রাম্পের প্রচার শিবিরের মুখপাত্র মুখ খোলেননি।

ট্রাম্পের সহযোগীরা দাবি করছেন, নেভাদা অঙ্গরাজ্যে বিশেষ করে ক্লার্ক কাউন্টিতে ভোটে অনিময় হয়েছে। লাস ভেগাসেও অনিয়ম হয়েছে।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জর্জিয়া, মিশিগান ও নেভাদায় এখনো ভোট গণনা চলছে।

যে কয়েকটি অঙ্গরাজ্যে দুই প্রার্থীর ভাগ্য ঝুলে আছে এ তিনটি রাজ্য সেগুলোর মধ্যে পড়েছে। এর মধ্যে নেভাদায় সামান্য ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছেন বাইডেন। জর্জিয়ার সামান্য ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছেন ট্রাম্প। মিশিগানে বাইডেন জিতবেন বলে পূর্বাভাস পাওয়া গেছে।

লাস ভেগাসে গতকাল বৃহস্পতিবার নেভাদার সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল অ্যাডাম ল্যাক্সালট ও ট্রাম্পের প্রচার সহযোগী রিচার্ড গ্রেনেল নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগ তোলেন। তবে তাঁরা কোনো প্রমাণ দিতে পারেননি। তাঁরা ফেডারেল কোর্টে মামলার করে ভোট গণনা বন্ধ করতে চান। ক্লার্ক কাউন্টির নির্বাচনী কর্মকর্তা জো গ্লোরিয়া বলেছেন, কোনো অবৈধ ব্যালটের প্রমাণ নেই।

মন্তব্য পড়ুন 0