বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গত বৃহস্পতিবার জলবায়ু সংকট মোকাবিলার জন্য বিল্ড ব্যাক বেটার আইনের প্রস্তাবনা আনেন বাইডেন। এ আইনে জলবায়ু সংকট মোকাবিলায় ১ দশমিক ৭৫ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলারের বরাদ্দ দেওয়ার কথা বলা হয়েছিল। এ অর্থ ব্যবহার করে যুক্তরাষ্ট্র আগামী দশকের মধ্যে কার্বন নিঃসরণ অন্তত ৫০ শতাংশ কমানোর লক্ষ্য অর্জন করতে চাইছে বলে জানিয়েছিল হোয়াইট হাউস।

তবে ডেমোক্রেটদের মতবিরোধের কারণে ওই আইন স্থানীয় সময় কাল রোববারের আগে পাস হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই। আর কালই শুরু হতে যাচ্ছে কপ-২৬ সম্মেলন। আইনটি পাস হলে জলবায়ু সম্মেলনে কার্বন নিঃসরণের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে ৫০০ বিলিয়ন ডলার বরাদ্দ দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিতে পারতেন বাইডেন।

কপ-২৬ সম্মেলনে কার্বন নিঃসরণমুক্ত বিশ্ব গড়তে যুক্তরাষ্ট্রকে নেতৃত্বের ভূমিকায় রাখতে চেয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। তবে কংগ্রেসে এ মতবিরোধের জেরে তাঁর প্রত্যাশা ফিকে হয়ে যাচ্ছে বলে মনে করেন বিশ্লেষকেরা।

পরিবেশবান্ধব জ্বালানী নিয়ে কাজ করা প্রতিষ্ঠান ইন্টারসেক্ট পাওয়ারের প্রধান সেলডন কিমবার জানান, জলবায়ু সংকট নিরসনে বাইডেনের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে ‘বিল্ড ব্যাক বেটার’ আইন একটি বড় পদক্ষেপ। তবে এ লক্ষ্য অর্জনে সম্মিলিত ইচ্ছা, সামাজিক ঐকমত্য এবং সরকারি ও বেসরকারি খাতের নেতৃত্বের প্রয়োজন রয়েছে।

এ বিষয়ে ম্যাসাচুসেটস অঙ্গরাজ্যের সিনেটর এড মার্কি বলেন, ‘জলবায়ু ইস্যুতে আমরা এত দিন যা করেছি, তার মধ্যে বিল্ড ব্যাক বেটার আইনের প্রস্তাব সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।
৩১ অক্টোবর থেকে স্কটল্যান্ডের গ্লাসগোতে শুরু হওয়া কপ-২৬ সম্মেলনকে প্যারিস চুক্তি-পরবর্তী সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ জলবায়ু সম্মেলন হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে।

বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধির গতি কমাতে বিশ্বজুড়ে কার্বন নিঃসরণের হার নির্ধারণের ক্ষেত্রে এ আলোচনাকে গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ বলে মনে করা হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন