default-image

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের একসময়ের আইনজীবী সিন্ডি পাওয়েল ক্ষতিপূরণ মামলা থেকে বাঁচার জন্য ‘সত্য’ বলতে শুরু করেছেন। সিন্ডি এখন বলছেন, গত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে তিনি যে জালিয়াতির কথা বলেছেন, যুক্তিবাদী মানুষের তা বিশ্বাস করার কোনো কারণ নেই। তিনি তাঁর মক্কেল ট্রাম্পের হয়ে নিজের মতামত জানিয়েছিলেন। সাধারণ মানুষ তাঁর এই মতামতের ভিত্তিতে নয়, নিজেদের বিবেচনা অনুসারে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে বলে মনে করেন তিনি।

যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোট গ্রহণের জন্য ডোমিনিয়ন নামের কোম্পানির তৈরি ইলেকট্রনিক মেশিন ব্যবহার করা হয়। ট্রাম্প নির্বাচনে হেরে যাওয়ার পর বলতে শুরু করেন, নির্বাচনে জালিয়াতি হয়েছে। ডোমিনিয়ন কোম্পানির সঙ্গে ডেমোক্র্যাটদের যোগাযোগ আছে বলে দাবি করেছিলেন ট্রাম্প। তিনি বলেছিলেন, প্রযুক্তিগতভাবে ভোটের ফলাফল বদলে দিয়ে তাঁকে হারিয়ে দেওয়া হয়েছে।

ট্রাম্পের এমন অভিযোগের কোনো ভিত্তি পাওয়া যায়নি। এমনকি তাঁর প্রশাসনের লোকজনও সব পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে বলেন, নির্বাচনে এমন কোনো জালিয়াতির ঘটনা ঘটেনি। এ নিয়ে ট্রাম্পের অর্ধশতাধিক মামলা কোনো আদালত আমলে নেননি।

ট্রাম্পের হয়ে রক্ষণশীল আইনজীবী হিসেবে পরিচিত সিন্ডি এমন অনেক মামলায় যুক্ত হন। মামলার বাইরে গণমাধ্যমে ডোমিনিয়ন কোম্পানির ভোটিং মেশিন সম্পর্কে ট্রাম্পের ভাষায় কথা বলেন সিন্ডি।

গত ৬ জানুয়ারি ট্রাম্পের উগ্র সমর্থকেরা ক্যাপিটল হিলে তাণ্ডব চালান। এই ঘটনায় পাঁচ ব্যক্তি নিহত হন। এই হামলার জেরে ট্রাম্প দ্বিতীয় দফায় অভিশংসিত হন।

২০ জানুয়ারি ক্ষমতা থেকে বিদায় নেওয়ার আগে ট্রাম্প তাঁর আইনজীবী রুডি জুলিয়ানি ও সিন্ডি পাওয়েলের সঙ্গে হোয়াইট হাউসে বসে নানা যুক্তি-পরামর্শ করতে থাকেন। সিন্ডি ট্রাম্পকে আইনি নানা পরামর্শ দেন বলে মার্কিন গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়। তৎকালীন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প একপর্যায়ে সিন্ডিকে নির্বাচনে কারচুপিসংক্রান্ত বিষয় তদন্তের জন্য ‘স্পেশাল কাউন্সেলর’ হিসেবে নিয়োগ দিতে যাচ্ছেন বলেও খবর প্রকাশিত হয়।

বিজ্ঞাপন
default-image

অন্য অনেকের মতো ২০ জানুয়ারির আগেই আইনজীবী সিন্ডির সঙ্গে ট্রাম্পের সম্পর্কের অবনতি ঘটে। ট্রাম্পের প্রচার শিবির থেকে তখন জানানো হয়, সিন্ডি আর তাঁদের আইনজীবীর তালিকায় নেই। তারপরও ট্রাম্পের সুরে মার্কিন গণমাধ্যমে কথা বলতে থাকেন সিন্ডি। তিনি ডোমিনিয়ন কোম্পানির বিরুদ্ধেও নানা অমূলক কথা বলতে থাকেন।

ডোমিনিয়ন কোম্পানি জানুয়ারিতেই আইনজীবী সিন্ডি ও রুডির বিরুদ্ধে ক্ষতিপূরণ মামলা দায়ের করে। সিন্ডির বিরুদ্ধে ভুয়া তথ্য দিয়ে ডোমিনিয়ন কোম্পানির সুনাম নষ্টসহ তাদের কর্মীদের জীবন বিপন্ন করার অভিযোগ আনা হয়। ওয়াশিংটন ডিসির আদালতে দায়ের করা এই মামলায় ১ দশমিক ৩ বিলিয়ন ডলার ক্ষতিপূরণ দাবি করেছে ডোমিনিয়ন।

ওয়াশিংটনের আদালতে শুনানি শুরু হওয়ার আগেই মামলাটি বাতিল চেয়ে আইনজীবী সিন্ডি আবেদন জানিয়েছেন। পৃথক আইনজীবীর মাধ্যমে মামলা বাতিলের আবেদনে সিন্ডি বলেছেন, তিনি নির্বাচন নিয়ে যে কথা বলেছেন, তা যুক্তিবাদী কোনো মানুষ বিশ্বাস করবে না। এসব কথার মাধ্যমে তিনি নিজের মতামত প্রকাশ করেছেন মাত্র। লোকজন স্বাধীন চিন্তার মাধ্যমে নিজেদের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। যেহেতু তাঁর কথাগুলো বিশ্বাসযোগ্য ছিল না, তাই এর মাধ্যমে ডোমিনিয়ন কোম্পানির কোনো ক্ষতি হয়নি।

গত সোমবার আদালতে দাখিল করা সিন্ডির আবেদনে বলা হয়েছে, মক্কেল ট্রাম্পের দায়ের করা মামলার বিষয়গুলোই তিনি (সিন্ডি) প্রচার করেছেন। তাঁর অবিশ্বাসযোগ্য তথ্য মানুষ বিশ্বাস করেনি উল্লেখ করে মামলাটি বাতিল বা টেক্সাস অঙ্গরাজ্যে স্থানান্তরের আবেদন জানানো হয়েছে।

প্রতিনিধি পরিষদের রিপাবলিকান সদস্য পিটার মেইজার বলেছেন, সিন্ডির বক্তব্য দুঃখজনক।

ট্রাম্পের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় দফা অভিশংসন প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দেওয়া কংগ্রেসম্যান পিটার ক্ষুব্ধ হয়ে বলেন, সিন্ডি আমেরিকার লাখ লাখ মানুষকে বিভ্রান্ত করেছেন। তাঁর এমন ভুয়া তথ্য প্রচারের জের ধরে ক্যাপিটল হিলে হামলা হয়েছে। পাঁচজন নিহত হয়েছেন। এখন সিন্ডি আদালতে নিজের দেওয়া বক্তব্য থেকে সরে এসে ‘সত্য’ বলতে শুরু করেছেন বলে উল্লেখ করেছেন পিটার।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন