default-image

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জিততে প্রতারণা ও সহিংসতার মতো যেকোনো কিছু করতে পারেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। এ সংকেত তিনি আগেই দিয়ে রেখেছেন। যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ডেমোক্রেটিক পার্টির ন্যান্সি পেলোসি বলেছেন, ডোনাল্ড ট্রাম্পের ভোট চুরি করা ঠেকাতে তিনি পদ্ধতিগতভাবে কয়েক মাস ধরে প্রস্তুতি নিচ্ছেন। শেষ পর্যন্ত মার্কিন জনগণের ভোট গণনা স্বচ্ছ হবে বলে তিনি আশাবাদী।

গত শুক্রবার হাফিংটন পোস্টকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে পেলোসি বলেছেন, ‘আমরা এর জন্য সবদিক থেকে প্রস্তুত। আমি তাঁকে জানিয়ে দিতে চাই, দিনে শেষে তিনি যা চান, তা ঘটবে না।’

জনমত জরিপগুলোয় ধারাবাহিকভাবেই ডেমোক্র্যাট প্রার্থী জো বাইডেনের চেয়ে পিছিয়ে ছিলেন ট্রাম্প। নির্বাচনের অনেক আগে থেকেই মানুষের বিশ্বাসকে ক্ষুণ্ন করার চেষ্টা করছেন তিনি। ট্রাম্প মিথ্যা দাবি করে বলেছেন, মেইলে পাঠানো ভোটগুলোয় ব্যাপক প্রতারণা করা হয়েছে। তিনি ভোটারদের ভয় দেখিয়েছেন। ভোটে হেরে গেলে শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রতিশ্রুতি দেননি।

তাঁর পক্ষে নির্বাচনী সহিংসতারও উসকানি দিয়েছেন। নির্বাচনের পর ভোট গণনার ক্ষেত্রে আইনি চ্যালেঞ্জ জানানোর হুমকিও দিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন

এক্সিওএসের তথ্য অনুযায়ী, ভোটের ফলাফল ঘোষণার আগে যদি কয়েক লাখ ভোট গণনা বাকি থাকে, কিন্তু ট্রাম্প এগিয়ে থাকেন, তবে মঙ্গলবার রাতেই নিজের জয় ঘোষণার পরিকল্পনা করেছেন।

ট্রাম্প ভোটের সংখ্যা কমিয়ে আনার চেষ্টা করলে নির্বাচনের ফলাফলকে প্রভাবিত করার মতো শক্তিশালী অবস্থানে রয়েছেন পেলোসি। হাফিংটন পোস্টকে বলেছেন, তিনি অবিশ্বাস্য কোনো ফলাফল আশা করছেন না, যেখানে কংগ্রেসকে বিজয়ী ঘোষণা করতে হবে। কিন্তু প্রয়োজন হলে তিনি সে পথেই হাঁটবেন। নির্বাচনের আগে–পরে ট্রাম্প যাতে কোনো গোলযোগ না বাধাতে পারেন, সে লক্ষ্যে আইনজীবী ও সংবিধান বিশেষজ্ঞদের নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে কাজ করছেন পেলোসি।

স্পিকার পেলোসি বলেছেন, ‘আমরা দীর্ঘদিন ধরেই সবচেয়ে বাজে পরিস্থিতির জন্যও প্রস্তুত রয়েছি। আমরা আগেও তাঁর সংবিধানের প্রতি অসম্মান জানানোর বাজে পরিস্থিতি দেখেছি। কোনো সমস্যা দেখলে আমাদের আইনজীবীরা ব্যবস্থা নেবেন।’

পেলোসি আরও বলেছেন, ট্রাম্প ও তাঁর প্রচারণা শিবির বাজে খেলায় অংশ নেওয়ার জন্য যে পরিকল্পনা প্রচার করেছে, তা বন্ধ করার জন্য প্রস্তুতিতে সহায়তা হয়েছে। তারা জনগণকে ভয় দেখিয়ে ভোট দেওয়া থেকে বিরত রাখতে চায়। এটা করলে তাদের বাধা দেওয়া হবে।

নির্বাচনের রাতে প্রেসিডেন্ট যদি নিজেকে জয়ী ঘোষণা করেন এবং ভোট গণনা বাকি থাকে, তার জন্যও তিনি প্রস্তুত আছেন। পেলেসি বলে, ‘এটা ছেলেখেলা নয়। এটা সাংবিধানিক বিষয়।’

অবশ্য ট্রাম্প শিবিরের পরিকল্পনা ভিন্ন। সোমবার ট্রাম্পের ডেপুটি ক্যাম্পেইন ম্যানেজার জাস্টিন ক্লার্ক ডেমোক্র্যাটদের বিরুদ্ধে নির্বাচনের ফলাফল বিতর্কিত করে তোলার পরিকল্পনার অভিযোগ তুলেছেন। ক্লার্কের কথা, ডেমোক্র্যাট শিবির যেভাবে প্রতিটি ব্যালট গোনার পর ফলাফলের কথা বলছে, এতে ট্রাম্পের আগাম ফলাফল ঘোষণার ক্ষেত্র তৈরি হয়েছে।

পেলোসি সবাইকে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। তাঁর কথা, যত বেশি ভোট পড়বে, মানুষের তত বেশি আত্মবিশ্বাস বাড়বে। সোমবার সকাল পর্যন্ত সাড়ে নয় লাখ ভোটার আগাম ভোট দিয়েছেন এবং রেকর্ড ভোটদানের নজির গড়েছেন।

মন্তব্য পড়ুন 0